৮ বছরের শিশু ছাত্রকে ধর্ষণ করল কওমী মাদ্রাসার শিক্ষক

কুমিল্লা জেলার চান্দিনা উপজেলায় ৮ বছরের শিশু ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগে কওমী মাদ্রাসা শিক্ষক মামুনুর রশিদ (৩২) কে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনতা।

আটক মাদ্রাসা শিক্ষক মামুনুর রশিদ চাঁদপুর জেলার কৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত শরফত আলীর ছেলে।আহত মাদ্রাসা ছাত্র সায়মন হোসেন উপজেলার আলী কামোড়া গ্রামের মনির হোসেন এর ছেলে। সে বর্তমানে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় চান্দিনা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।


আহতের পিতার মনির হোসেন বলেন, গত ১২ নভেম্বর ওই মাদ্রাসায় চাকুরী নেয় শিক্ষক মামুনুর রশিদ। কওমী মাদ্রাসা হিসেবে সকল ছাত্র মাদ্রাসায় থাকে, সেই সুযোগে বুধবার (১৪ নভেম্বর) ভোরে শিক্ষক মামুনুর রশিদ আমার ছেলেকে জোর পূর্বক বলাৎকার করে। এতে আমার ছেলে মারাত্মক আহত হয়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে আমার ছেলে ব্যথা সহ্য করতে না পেরে দুপুর ১২টায় বাড়িতে এসে বিষয়টি আমাদেরকে জানায়। তাৎক্ষনিক ভাবে আমরা তাকে চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করি।


এদিকে ঘটনাটি জানাজানি হলে স্থানীয় বিক্ষুদ্ধ জনতা মাদ্রাসা থেকে শিক্ষক মামুনুর রশিদকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে মাথার চুল কেটে দেয় এবং চান্দিনা থানা পুলিশে দেয়।