চবিতে ভর্তি হতে আমরণ অনশনে রহমত উল্লাহ্‌

রহমত উল্লাহর বাড়ি মাদারীপুর। ২০১৮-১৯ সেশনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বি’ ইউনিট পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে মেধাতালিকায় ৯১৭ তম হন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে ট্রেনে করে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। ফেনী অতিক্রম করার পর বিকেল ৩ থেকে ৪ টার দিকে তন্দ্রাচ্ছন্ন হয়ে গেলে তার ব্যাগ চুরি হয়ে যায়। ব্যাগের মধ্যেই ছিল তার কাগজপত্র। 

১৮ই নভেম্বর ছিল তার ভর্তির শেষ দিন। ফলাফলের ভিত্তিতে  ইসলামিক স্টাডিজ পেলেও কাগজপত্র না থাকায় ভর্তি হতে পারেনি সে। কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. সেকান্দার চৌধুরীকে বার বার বুঝানোর পরেও সেই কাগজ পত্র ছাড়া ভর্তি হতে অনুমতি না দেওয়ায় এবং তাই কাগজপত্র উঠানো পর্যন্ত সময় দেয়ার দাবিতে ২২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়  শহীদ মিনারে আমরণ অনশন শুরু করে রহমত উল্লাহ্‌।

রহমত উল্লাহ্‌ বলেন, গত ১৭ নভেম্বর বাড়ি থেকে আসার পথে ট্রেনে ফেনী অতিক্রম করার পর বিকেল ৩ থেকে ৪ টার মধ্যে তন্দ্রাচ্ছন্ন হয়ে গেলে আমার ব্যাগসহ কাগজপত্র চুরি হয়ে যায়। গত ১৮ অক্টোবর ছিল তার ভর্তি হওয়ার শেষ দিন। কাগজপত্রের কারণে আমি ভর্তি হতে পারিনি। এ জন্য কাগজপত্র উঠানো পর্যন্ত আমাকে ভর্তি হওয়ার সুযোগ দেয়ার জন্য আমরণ অনশন করছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্র বলেন, আমরা জানতে পেরেছি একটা ছেলে অনশন করছে, আমরা তাকে ডেকে এনে কথা বলেছি। ভর্তি কমিটির সাথে এ ব্যাপারে কথা হয়েছে, তার ব্যাপারে একটা সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. সেকান্দর চৌধুরী বলেন, কাগজপত্র ছাড়া আমরা কাউকে ভর্তি করাইনি। কাগজপত্র হারিয়ে গেলে আমাদের কি করার আছে। আমাদের নিয়ম মেনে চলতে হয়। তারপরেও বিষয়টা উপাচার্য মহোদয়কে জানানো হয়েছে। তার বিষয়টা আমরা বিবেচনায় রাখলাম।’