নির্বাচনের নামে সরকার ভোট ডাকাতি ও জালিয়াতি করেছে: রব

৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের নামে সরকার ভোট ডাকাতি ও জালিয়াতি করেছে। এ নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি বিধায় তা গ্রহণ করেনি বলে মন্তব্য করেছে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব।

সুষ্ঠু পুনর্নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যমত গড়ে তোলার জন্যই জাতীয় সংলাপ অপরিহার্য বলে দাবি করেন আবদুর রব। বুধবার বিকেল অনুষ্ঠিত জেএসডি কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির ঢাকায় অবস্থানরত সদস্যদের সভায় সভাপতির বক্তব্য এমন মন্তব্য করেন তিনি।

রব বলেন, ‘ গণতন্ত্রের স্বার্থে সুষ্ঠু পুনর্নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যমত গড়ে তোলার জন্যই জাতীয় সংলাপ অপরিহার্য। এ সংলাপে নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী সব রাজনৈতিক দল, পেশাজীবী, সুশীল সমাজ, নারী ও ক্ষুদ্র জাতি সত্তার প্রতিনিধিদের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘২০১৪ ও ২০১৮ তে অনুষ্ঠিত দুই রকমের নির্বাচনী প্রহসন প্রমাণ করেছে দলীয় সরকারের অধীনে এবং একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন ছাড়া বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়। এ জন্য পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষ গঠন করে সেখান থেকে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের বিধান করতে হবে।’

রব আরও বলেন, ‘স্বাধীনতার ৫০ বছর পর জাতিকে মুর্খ করে রাখার জন্য হেফাজতী হুজুর মেয়েদের লেখাপড়া বন্ধ করার যে বক্তব্য দিয়েছেন এ জন্য তার বিচার হওয়া উচিত।’

আরও পড়ুন: নখের উপর প্রিজনের ছবি।

তিনি বলেন, ‘নোয়াখালীর সুবর্ণ চরে নৌকা প্রতীকে ভোট না দেয়ার কারণে ৩০ ডিসেম্বর রাতে ৪ সন্তানের মায়ের ওপর পাশবিক নির্যাতন চালানো হয়েছে; যা সারা পৃথিবী জানে অথচ পাশবিক অত্যাচারকারী কয়েকজন মূল আসামিকে মামলা থেকে বাদ দেয়ার জন্য বিভিন্ন অপচেষ্টা চলছে।’ এ ষড়যন্ত্রের তীব্র নিন্দা জানান রব।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন জেএসডি সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল উদ্দিন পাটোয়ারী, অ্যাডভোকেট সৈয়দ বেলায়েত হোসেন বেলাল, আবদুর রাজ্জাক রাজা প্রমুখ।