কুমিল্লা প্রাচীন মন্দিরের সন্ধান

কুমিল্লা জেলার চান্দিনায় ১৬৭০ সালে নির্মিত প্রাচীন মন্দিরের সন্ধান পাওয়া গেছে ।চান্দিনা উপজেলার কালীবাড়ী এলাকায় অবিস্থিত মহামায়া রাজ কালি মন্দির নামে পরিচিত এ মন্দিরটি কখন কত সালে কে তৈরী করে ছিল সেটা এখনো জানা যায়নি।

এব্যাপারে মঙ্গলবার সন্ধায় সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালয় এর অধিন প্রত্নতত্ব অধিদপ্তর আঞ্চলিক পরিচালক চট্রগ্রাম ও সিলেট বিভাগ, কুমিল্লা এর রিজিওনাল ডাইরেক্টর ড. আতাউর রহমান এ মন্দিরটি পরিদর্শনে এসে জানান, চান্দিনা বড় বাজারটি চান্দিনার শেষ জমিদার ভূকৈলাশরাজ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।’

তিনি বলেন, ক্ষীর নদীর নামে একটি খালের পারে বাজারের অবস্থান। চান্দিনার বিশাল জলাশয়ের পারে বেশ কিছু পুরাকীর্তির ধ্বংসাবশেষ রয়েছে। পশ্চিমে ৭.৬২ মি. উচ্চতা বিশিষ্ট একটি ঢিবির উপর একটি মন্দির লক্ষ্য করা যায়, স্থানীয়ভাবে এটি মহামায়া ঢিবি বলে পরিচিত। এ স্থল থেকে কিছু সংখ্যক বৌদ্ধ মূর্তি আবিস্কৃত হয়েছে। এখানে যে হিন্দু ধর্মালম্বীদের কালিমন্দির রয়েছে তা ১৬৭০ খ্রি. মির্জা হুসাইন আলীর পৃষ্ঠপোষকতায় নির্মিত হয়েছে বলে জানা যায়।’

পরিদর্শনে দেখা যায়, মন্দিরটি অনেকটা বৌদ্ধ মন্দিরের আদলে নির্মিত। প্রাচীন দুটি নিদর্শনেই পূর্ব ও দক্ষিণমুখি দরজা বিশিষ্ট এই মন্দিরে শ্বেত পাথরের উপর শিব লিঙ্গ রাখা আছে। মন্দিরটি বর্তমানে আধুনিক করা হয়েছে। ঐতিহাসিক এই মন্দিরদ্বয়ের স্থাপত্যশৈলীর বিচারে গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যতিক্রমধর্মী হওয়ায় প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মাধ্যমে সরকারের প্রাচীন পুরাকীর্তি তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হওয়ার দাবী রাখে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, চান্দিনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জাকারিয়া ও স্থানীয় ব্যাক্তি বর্গ প্রমুখ।