হাসপাতাল ছাড়লেন সুবর্ণচরের সেই গৃহবধূ

১৭ দিন চিকিৎসা শেষে হাসপাতাল ছেড়ে বাড়ি ফিরলেন নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলায় গণধর্ষণের শিকার সেই গৃহবধূ।

সুবর্ণচরের সেই গৃহবধূ

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে ছাড়পত্র দেন।

এ নিয়ে নোয়াখালী হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম বলেন, মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শ অনুযায়ী দুই সপ্তাহের অধিক সময় রোগীকে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও চিকিৎসা শেষে ছুটি দেয়া হয়েছে। আগামী ২ ফেব্রুয়ারি তাকে হাঁড়ের চিকিৎসকের কাছে আসতে বলা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, শারীরিকভাবে অনেকটা সুস্থ রয়েছেন গৃহবধূ। স্বাভাবিক খাওয়া-দাওয়া ও নিজে নিজে চলাফেরা করতে পারছেন তিনি। সর্বশেষ মেডিকেল বোর্ড গঠন করে তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় ছুটি দেয়া হয়েছে। তবে আগামী ২ ফেব্রুয়ারি অর্থোপেডিক বিভাগে আবারও তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে। পরবর্তীতে তার কোনো সমস্যা হলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করবে।

এদিকে হাসাপতাল ছেড়ে বাড়ি যাওয়ার সময় নির্যাতিত গৃহবধূ গণপমাধ্যমকে বলেন, আগের চেয়ে একটু ভালো আছি। একটু হাঁটতেও পারছি। তবে এলাকা থেকে নানা ধরনের হুমকি আসাতে ভয়ে আছি। সরকারের কাছে আমাদের নিরাপত্তা চাই।

জানা গেছে, হাসপাতাল থেকে বাড়ি যাওয়ার সময় ভুক্তভোগীর সঙ্গে যায় গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই জাকির হোসেন বলেন, ভুক্তভোগীর নিরাপত্তার বিষয়ে সচেষ্ট রয়েছে পুলিশ।