রোহিঙ্গাদের অভয়ারণ্য বাংলাদেশ : এবার ভারত থেকে আসল ১৩০০

ভারত থেকে জোর করে আবার মিয়ানমারে পাঠিয়ে দেওয়ার ভয়ে প্রায় ৩০০ পরিবারের এক হাজার ৩০০ রোহিঙ্গা বিভিন্ন সীমান্ত পাড়ি দিয়ে এখন বাংলাদেশে ঢুকে পড়ছে।

বর্তমানে এদের অধিকাংশ কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) ট্রানজিট ক্যাম্পে আছেন। এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশরাফুল আবসার

তিনি বলেন, ‘আমরা শুনেছি ভারতে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের জোর করে মিয়ানমারে পাঠানো হচ্ছে। সেই ভয়ে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে পালিয়ে আসছেন। বিষয়টি বাংলাদেশের জন্য উদ্বেগজনক। এ বিষয়ে কী করা যায়, আমরা তা নিয়ে চিন্তা করছি।’

কক্সবাজার শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার আবুল কালাম বলেন, ‘আমরা শুনেছি প্রায় ৩০০টি পরিবারের এক হাজার ৩০০ রোহিঙ্গা ভয়ে বাংলাদেশে চলে এসেছেন। এদের বেশিরভাগকেই উখিয়ার বালুখালীর ইউএনএইচসিআরের ট্রানজিট ক্যাম্পে আপাতত রাখা হয়েছে। কিছু কিছু হয়তো এখনও আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে ক্যাম্পে আছে। তবে সবাইকে ট্রানজিট ক্যাম্পে নিয়ে আনার প্রক্রিয়া চলছে। এখন তাদের জন্য জায়গা খোঁজা হচ্ছে। জায়গা পেলে অন্যত্র সরানো হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘কিছুদিন আগে একটি রোহিঙ্গা পরিবারকে ভারত থেকে জোর করে মিয়ানমারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল। আর এ থেকে স্বদেশে ফেরত পাঠানোর ভয়ে রোহিঙ্গারা এখন বাংলাদেশে চলে আসা শুরু করেছেন। আমরা এ রকম শুনেছি। বর্তমানে প্রায় সাড়ে ১১ লাখ রোহিঙ্গার চাপে আমাদের হিমশিম খাওয়ার অবস্থা। এমন পরিস্থিতিতে আবার ভারত থেকে রোহিঙ্গারা আসছেন, এটি আমাদের জন্য মোটেও ইতিবাচক নয়- জানান তিনি।’

উল্লেখ্য, গত বছরের ২৫ আগস্টের পর থেকে মিয়ানমারে গণহত্যা ও নির্যাতনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে প্রায় সাড়ে আট লাখ রোহিঙ্গা। এর আগে বিভিন্ন সময়ে আসাসহ বর্তমানে কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ৩২টি অস্থায়ী শিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন ১১ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা।