বিসিএফের গুলিতে বাংলাদেশি যুবক নিহত

ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার ধর্মগড় সীমান্তে ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করতে গিয়ে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছে।

শুক্রবার (১৮ জানুয়ারী) ভোর জেলার রানীশংকৈল উপজেলার ধর্মগড় সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে।

বিএসএফের গুলিতে নিহত হওয়া ব্যক্তির নাম জাহাঙ্গীর আলম রাজু (২১)। রাজু রানীশংকৈল উপজেলার শাহানাবাদ গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে।

এলাকাবাসী জানান, শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে জাহাঙ্গীর আলম রাজুসহ কয়েকজন গরু ব্যবসায়ী ধর্মগড় সীমান্তের ৩৭৪/২ নম্বর সীমান্ত পিলারের পাশ দিয়ে ভারতীয় ভুখণ্ডে প্রবেশ করে। এ সময় ভারতের উত্তর দিনাজপুর জেলার শ্রীপুর বিএসএফ ক্যাম্পের টহল দল তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। গুলিবিদ্ধি হয়ে ঘটনাস্থলেই জাহাঙ্গীর আলম রাজু নিহত হয়। বাকিরা পালিয়ে আসে।

বিজিবির ঠাকুরগাঁও-৫০ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল তুহিন মোহা. মাসুদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, বিএসএফের সঙ্গে যোগাযোগ করে মরদেহ ফেরত আনার চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য। ২০১১ সালের ৭ই জানুয়ারি পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলায় চৌধুরীহাট সীমান্ত চৌকির কাছে ভোররাতে দালালদের সাহায্যে সীমান্ত পার হওয়ার সময় বিএসএফের গুলিতে নিহত হয় ফেলানী নামে বাংলাদেশের এক কিশোরী। ৮ বছর পূর্ণ হলেও এখনো বিচার প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ শেষ হয়নি। বিএসএফের নিজস্ব বিচার প্রক্রিয়া ও ট্রাইব্যুনালে দু’দফায় দীর্ঘ শুনানির পরও অভিযুক্ত জওয়ান অমিয় ঘোষ বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।