অপহরণের তিনদিন পর শিশুর কয়েক টুকরো লাশ উদ্ধার

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় অপহরণের তিনদিন পর লেবু বাগান থেকে যুবায়েদ হোসেন নামে ৭ বছরের এক শিশুর কয়েক টুকরো লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। উপজেলার দিঘুলিয়া ইউনিয়নে জ্বালসুখা গ্রামের সামচুল হকের শিশুপুত্র যুবায়েদ হোসেন (৭) স্থানীয় জ্বালসুখা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণিতে পড়াশোনা করত।

বৃহস্পতিবার বিকালে প্রতিবেশী মো. পাহালীর ছেলে মহিদুল ইসলাম তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এরপর নিজের পরিচয় গোপন করে মোবাইল ফোনে শিশুর বাবা শামছুল হক ও মা জাহানারা বেগমের কাছে ৩লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। এরপর মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে শনিবার রাতে গাজীপুর এলাকা থেকে অপহরণকারীকে আটক করা হয়।

যুবায়েদ হোসেন (৭)। ছবি: সংগৃহীত

এ ঘটনায় সাটুরিয়া থানায় শুক্রবার সাধারণ ডায়েরি করেন শামছুল ও জাহানারা। ওই অভিযোগের পর সাটুরিয়া থানা পুলিশ ও র‌্যাব-৪ মোবাইল ট্র্যাকিং করে।

পরে রোববার সকালে আটক অপহরণকারী মহিদুলের তথ্যের ভিত্তিতে তাকে সঙ্গে নিয়ে অপহৃত শিশুটির নিজগ্রাম উপজেলার জ্বালসুখা এলাকায় একটি নির্জন লেবু বাগানে অভিযান চালায় পুলিশ ও র‌্যাব-৪। পরে সেখানে ওই শিশুর মাথা বিচ্ছিন্ন ও শরীর কয়েক টুকরো অবস্থায় পাওয়া যায়

র‌্যাব-৪ এর কর্মকর্তা মেজর মো. আ. হাকীম বলেন, ‘টানা দুই দিনের অভিযানে শিশু যুবায়েদকে উদ্ধারের চেষ্টার কোনো ঘাটতি ছিল না। অভিযানে শিশুটিকে জীবিত উদ্ধার করতে পারলে ভালো লাগত। আটককৃত মহিদুলের দেয়া স্বীকারোক্তি এবং ছিন্নবিচ্ছিন্ন লাশের অবস্থা দেখে বুঝা যায় অপহরণের পরপরই শিশুটিকে হত্যা করা হয়েছে।’

এ ব্যপারে সাটুরিয়া থানার এসআই মো. শামছুল ইসলাম বলেন, ‘শিশু যুবায়ের হত্যা ঘটনায় সাটুরিয়া থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। শিশুটির লাশের টুকরো দেহগুলো উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। অপহরণসহ হত্যার ঘটনায় জড়িত তিনজনকে আটক করা হয়েছে।’