জেমসের ‘মা’ গান গেয়ে সবাইকে কাঁদালেন নোবেল

দুই বাংলায় সমান জনপ্রিয় নোবেল । ভারতের জি-বাংলা টেলিভিশনের ‘সা রে গা মা পা’-য় জেমসের ‘বাবা’ গানটির মাধ্যমে পথ চলা শুরু হয় তাঁর । সর্বশেষ ১৯ জানুয়ারি রাতেও  ‘সা রে গা মা পা’-য় জেমসের তুমুল জনপ্রিয় ‘মা’ গানটি পরিবেশন করেন তিনি, আর আবেগ ভরা গায়কীতে মায়ের জন্য হাহাকার করা সুরে গাইতে গাইতে কাঁদালেন সবাইকে।

নোবেল এখন জি বাংলার ‘সা রে গা মা পা ’ মাতিয়ে রেখেছেন।দুই বাংলার কোটি কোটি দর্শকের হৃদয় জয় করেছেন বাংলাদেশের গোপালগঞ্জের এই তরুণ।

১৯ জানুয়ারি রাতে ভারতের জি-বাংলা টেলিভিশনের ‘সা রে গা মা পা’-য় জেমসের তুমুল জনপ্রিয় ‘মা’ গানটি পরিবেশন করেন নোবেল। অনুষ্ঠানের উপস্থাপক কলকাতার নায়ক যিশু সেনগুপ্তকে উৎসর্গ করে গানটি গাইলেন নোবেল। গানের পাশাপাশি ছিলো রবি ঠাকুরের লেখা ‘মাকে আমার পড়ে না মনে’ কবিতার আবৃত্তি।

গানটি গাইতে গিয়ে রীতিমত ঝড় তুলেছেন তিনি মঞ্চে। মায়ের জন্য আবেগী সুরে গাইতে গাইতে নোবেল কাঁদলেন, কাঁদালেন সবাইকেব। মঞ্চে দাঁড়িয়ে কাঁদলেন যিশু সেনগুপ্ত এবং বিচারকরা।

গানটি  ‘সা রে গা মা পা’এর ফেসবুক পেজে আপলোড হবার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসায় ভাসছেন নোবেল এবং তাঁর গাওয়া ‘মা’ গানটি ।
ছোটবেলায় বাবার আনা গানের ক্যাসেট  শুনে শুনে আইয়ুব বাচ্চু, জেমস, হাসানের গান তুলতেন। ‘হাসতে দেখো গাইতে দেখো’, ‘চারদিকে উৎসব’ গানগুলো ছিল মুখস্থ । নোবেল জেমসের মতোই গাইতে চেয়েছিলেন ।  তবে জেমস নয় হতে চেয়েছেন ‘নোবেল’ । একটা ব্যান্ড দল রয়েছে নোবেলের । নাম নোবেলম্যান। তার ইচ্ছা নোবেলম্যান ছড়িয়ে যাবে দেশ–বিদেশে। দেশ বিদেশে ছড়িয়ে যাবে বাংলা গানও।
নোবেল

নোবেল জন্মেছেন গোপালগঞ্জে। কিন্তু বেড়ে উঠেছেন বিভিন্ন জায়গায়। বাবার ছিল পরিবহনের ব্যবসা। সেই সূত্রে কখনো খুলনা, কখনো ঢাকায় কেটেছে ছোটবেলা।

নোবেলের প্রথম গিটার ৬০০ টাকায় কেনা সিগনেচার ব্রান্ডের একটি গিটার। 

সময়টা ২০১৪। তত দিনে পুরোদস্তুর গানের সঙ্গে প্রেম হয়ে গেছে নোবেলের। বাবা–মাকে জানিয়ে দেন, বই–খাতা কিংবা বড় চাকরি নয়, আমার প্রেম আসলে গানের সঙ্গে। গানের সঙ্গেই থাকতে চান তিনি।

বাবা মাকে উদাহরণ দিতেন, ‘জিম মরিসন মাত্র সেভেন পাস, আমাদের গুরু জেমস পড়াশোনা না করে বাসা ছেড়েছিলেন। আমিও তাঁদের মতো হব।’

বাবা উত্তর দিতেন, ‘তুমি তাঁদের মতো কখনোই হতে পারবা না। পারলে হয়ে দেখাও? জেমস একজনই!’

নোবেল উত্তর দিতেন, ‘আমিও একজনই। আমি তাঁদের মতোই হব। আমি জেমস না হতে পারি, নোবেল হব।’

নোবেলের সেই স্বপ্ন বোধ হয় আর দূরে নেই । নিজেকে ক্রমাগত প্রমাণ করে চলেছেন নোবেল । একের পর এক মঞ্চ কাঁপানো গান উপহার দিচ্ছেন দর্শকদের ।

কাজী নজরুল ইসলাম , রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, জেমস , আইয়ুব বাচ্চু কার গান নেই  তাঁর ঝুড়িতে ! সবার গান গেয়েই নোবেল দেখিয়েছেন নিজের মুনশিয়ানা।