প্রেমিকের সাথে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার ১০ শ্রেণির ছাত্রী

খুলনায় দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে তিন বন্ধু মিলে গণধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার (২৯ জানুয়ারি) রাতে খুলনার মহানগরীর খানজাহান আলী থানাধীন আফিল জুট মিল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্তরা হলেন- রুস্তমের ছেলে সাগর (২২), রেনু মিয়ার ছেলে বিল্লাল (৩০) ও মো. টোকনের ছেলে সফিক (২৬)। এরা সবাই নগরের আটরার কলাবাগান এলাকার বাসিন্দা। মূল অভিযুক্ত আসামী সাগর। এ ঘটনায় সাগরের বাবা রুস্তমকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আটক করা হয়েছে।

ঐ স্কুল ছাত্রীকে জিনিসপত্র কিনে দেয়ার কথা বলে সারাদিন মোটরসাইকেলে ঘুরিয়ে রাতে আফিল জুটমিল এলাকার আটরায় নিয়ে যায় সাগর। সে জায়গায় তিন বন্ধু গণধর্ষণ করে ফেলে যায়।গুরুতর অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে ছাত্রীকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে স্থানীয়রা।

এলাকাবাসী বলেন, সাগরের সঙ্গে মেয়েটির কিছুদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। যার সূত্রে ধরে স্কুল পালিয়ে সাগরের সঙ্গে ঘুরতে দেখা যায়।খানহাজান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিকুল ইসলাম বলেন, সকালে স্কুলে যাবার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর সাগর নামে এক যুবক তাকে কিছু কেনাকাটা করে দেবার প্রলোভন দেখিয়ে সারাদিন মোটরসাইকেলে করে ঘুরে বেড়ায়। সন্ধ্যার পর আফিল জুট মিল এলাকায় ওই স্কুলছাত্রীকে সাগর, বিল্লাল ও সফিক ধর্ষণ করে। পরে খবর পেয়ে এলাকাবাসী মেয়েটিকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

রাতেই স্কুলছাত্রীর বক্তব্য রেকর্ড করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা প্রস্তুতি ও ধর্ষকদের আটকের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি সফিকুল।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও পরিচালনা কমিটির সভাপতি জানান, সোমবার ২৮ জানুযারি মেয়েটি স্কুলে আসেনি। সাগর মেয়েটিকে তুলে নিয়ে বিল্লাল ও সফিকসহ গণধর্ষণ করে। অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি করেন।