পৃথিবীর বিখ্যাত কিছু বইমেলা

শুরু হয়েছে ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি। তার সঙ্গেই সঙ্গতি রেখে শুরু হয়েছে বাঙালির প্রাণের মেলা অমর একুশে
গ্রন্থমেলা। এ বছর গ্রন্থমেলার মূল বিষয়বস্তু ‘বিজয়: ১৯৫২ থেকে ১৯৭১ নবপর্যায়’। বিষয়বস্তুকে সামনে রেখে
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের স্বাধীনতা স্তম্ভকে নিয়ে আসা হয়েছে মেলা প্রাঙ্গণের ভেতরে, যা গতবার পর্যন্তও ছিল 
মেলাপ্রাঙ্গণের বাইরে। এছাড়া একাডেমি প্রাঙ্গণ এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রায় ৪ লাখ বর্গফুটের মতো বিশাল
পরিসরে অনুষ্ঠিত হবে মেলা ।একুশে গ্রন্থমেলায় এবার ৪৯৯টি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছে। গতবার যে সংখ্যা 
ছিল ৪৬৫টি। আর ছুটির দিন ছাড়া গ্রন্থমেলা চলবে প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত।
যতদিন পর্যন্ত প্রকাশনা শিল্প আছে ততদিন থাকবে বইমেলা। অন্য যেকোন শিল্পের মতোই বইমেলা নতুন বই 
প্রদর্শন ও বই কেনাবেচার সরথেকে বড় মিলনমেলা। বইমেলা শুরু প্রথম দিনে আসুন জেনে নেই , বিশ্বের বড় বড়
কিছু বইমেলা সম্পর্কে। 

ফ্রাংকফুর্ট বইমেলা

১১ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় ফ্রাংকফুর্ট বইমেলা । এটি পৃথিবীর সর্ববৃহৎ বইমেলা। এই মেলার মূল বিষয় ‘বিজনেস ফার্স্ট’ ! প্রকাশক, এজেন্ট, বইবিক্রেতা, পুস্তকাগারের পরিচালক, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক বা পত্রিকার সমালোচক, পুস্তক অলঙ্করণ শিল্পী, অনুবাদক, সফ্টওয়্যার ও মাল্টিমিডিয়া বিশেষজ্ঞ বা ফিল্ম প্রযোজক, সকলেরই দেখা মিলবে এই ফ্রাংকফুর্ট বইমেলায় ৷ শ’খানেক দেশ থেকে আগত  দশ হাজারের বেশি সাংবাদিক-সংবাদদাতাদেরও দেখা পাওয়া যায় এখানে ৷ বইয়ের সংখ্যা , প্রকাশনা সংস্থা এবং সংখ্যা সবকিছুর ভিত্তিতেই ফ্রাংকফুর্ট বইমেলা সর্ববৃহৎ।

বুকএক্সপো আমেরিকা

 

মে মাসের শেষের দিকে অথবা জুনের গোড়ার দিকে চার দিন ধরে অনুষ্ঠিত হয় বিইএ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম বইমেলা। ১৯৪৭ সাল থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত আমেরিকার বুকসেলার অ্যাসোসিয়েশন কনভেনশন অ্যান্ড ট্রেড শো হিসাবে এটি ওয়াশিংটন ডিসিতে অনুষ্ঠিত হয়। ২০১৮ সালে থেকে এটি ৩০ মে থেকে ১ জুন পর্যন্ত নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত হয়।

নিউ দিল্লি ওয়ার্ল্ড বুক ফেয়ার
১৯৭২ সালে শুরু হয় ভারতের নিউ দিল্লি ওয়াল্ড বুকফেয়ার। তখন এটি ২০০ জন প্রকাশক আয়োজন করেন।
এটি ভারতের দ্বিতীয় প্রাচীনতম বইমেলা । এখন এটি 'ন্যাশনাল বুক ট্রাস্ট' নামে একটি সংস্থা আয়োজন করে।
নিউ দিল্লি ওয়াল্ড বুকফেয়ার বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম ইংরেজি ভাষার বইমেলা । এমেলায় ১৮টি ভাষার ১২০০০ প্রকাশক 
অংশ নেয়। 
দ্য বালোগনা চিল্ড্রেন্স বুকফেয়ার
এটি শিশুদের জন্য শীর্ষস্থানীয় বইমেলা। ১৯৬৩ সাল থেকে এটি ইতালির বাগ্লোনায় মার্চ বা এপ্রিলে অনুষ্ঠিত হয়। 
ছয়টি হলজুড়ে আয়োজিত এ মেলায় ২৫০০০ এরও বেশি দর্শক এবং ১২০০ টি প্রকাশনার প্রদর্শনী থাকে । এটি 
শিশুদের সমগ্র পৃথিবীর সাথে সংযুক্ত করে এবং ভবিষ্যতের জন্য তৈরী করে। 

আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা 
এটি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় অ-বাণিজ্য বইমেলা, ২৫ মিলিয়নেরও বেশি অংশগ্রহণকারীর সাথে এশিয়ার বৃহত্তম এবং
বিশ্বের সবচেয়ে বেশি দর্শক উপস্থিত হয় এমেলায়। ৩৪ জন প্রকাশক এবং ৫৬টি স্টল নিয়ে প্রথম কলকাতা বইমেলা
৫ মার্চ, ১৯৭৬ সালে অনুষ্ঠিত হয়েছিল।
কায়রো ইন্টারন্যাশনাল বুকফেয়ার
মেলাটি আরবি প্রকাশনা বিশ্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা হিসাবে বিবেচিত হয় । প্রতি বছর প্রায় ২ মিলিয়ন দর্শক
সমাগম ঘটে কায়রো ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ারে । এটি আরব বিশ্বের সর্ববৃহৎ এবং প্রাচীনতম বই মেলা,যা 
জানুয়ারীর শেষ সপ্তাহে কায়রোতে প্রতিবছর অনুষ্ঠিত হয়।
আবুধাবি ইন্টারন্যাশনাল বুকফেয়ার 
বার্ষিকভাবে অনুষ্ঠিত আবুধাবি ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ার সাহিত্য ক্যালেন্ডারে স্থান পাওয়া অন্যতম বড় বইমেলা ।
আবুধাবি কর্তৃপক্ষের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য দ্বারা আবুধাবি কর্তৃক আয়োজিত এ মেলাটি ফ্রাংকফুর্ট বইমেলার সহায়তায়
আয়োজিত । এটি মূলত এমিরার্টসদের একটি পদক্ষেপ যাতে করে বিশ্বব্যাপী তাদের প্রকাশনার দরজা খুলে যায় ।
আরবি ভাষা, মধ্য প্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকার প্রকাশকদের জন্য মেলাটি একটি সমঝোতা, যাতে করে তারা
বিক্রির অধিকার এবং লাইসেন্স পেতে পারে।  
গুয়াডালজারা ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ার
মেক্সিকান শহর গুয়াডালজারায় স্পেনীয় ভাষার প্রকাশকদের জন্য আয়োজিত প্রধান অনুষ্ঠান। এফয়াইএল(ফেরিয়া
ইন্টারন্যাশনাল ডেল লিব্রো)এইমেলার মাধ্যমে চেষ্টা করে বইশিল্প পেশাদারদের পাশাপাশি পাঠকদের জন্য সর্বোত্তম 
ব্যবসায়িক পরিবেশ প্রদানের। গুয়াডালজারা বিশ্ববিদ্যালয় দ্বার আয়োজিত এ মেলা ১৯৮৭ সাল থেকে প্রতি বছর
অনুষ্ঠিত হয় । শহরের কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত প্রদর্শনী কেন্দ্র ৪০০০০ বর্গমিটার জায়গাটিকে চিত্তাকর্ষক করে তোলে। 
মেলাটি সাধারণত নভেম্বরের শেষের দিকে এবং ডিসেম্বরের শুরুর দিকে নয় দিন ধরে চলে।

হংকং বইমেলা

হংকং বইমেলা সাধারণত জুলাই মাসে অনুষ্ঠিত হয় । প্রথম হংকং বইমেলা ১৯৯০ সালে অনুষ্ঠিত হয়। এটি হংকং
ট্রেড ডেভেলপমেন্ট কাউন্সিল দ্বারা আয়োজিত হয় এবং এটি এশিয়ার বৃহত্তম বইমেলা। এটি হংকংয়ের একটি বড়
এবং গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠান যেখানে প্রতি বছর দর্শক সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।
হংকং বই মেলা অবিলম্বে ভৌগলিক ক্ষুদ্র অঞ্চলের মধ্যে থেকে সাহিত্য সংস্কৃতিতে আরো উন্নীত হবার লক্ষ্য নিয়ে
কাজ করছে। এটি বিশ্বের সেরা সাহিত্যকে প্রদর্শন করে এবং সর্বশেষ প্রকাশনার উদ্ভাবনগুলি প্রদর্শন করে।ঠিক
যেমনটি আপনি এশিয়ার একটি প্রধান মেলায় আশা করবেন । তেমনি সাম্প্রতিক প্রযুক্তিগত ও মাল্টিমিডিয়া 
উদ্ভাবনগুলি প্রদর্শন করা হয় এমেলায় এবং দর্শকরা বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ক্রিয়াকলাপের পাশাপাশি বইও কিনতে পারে।
লন্ডন বইমেলা

প্রায় অর্ধ শতাব্দী ধরে প্রতি বছর অনুষ্ঠিত হচ্ছে লন্ডন বইমেলা । লন্ডন বইমেলার কথা উল্লেখ না করে
বিশ্বব্যাপী মেলা সম্পর্কে লিখলে অপরাধমূলক কাজ হবে। লন্ডন বুকফেয়ার লাইব্রেরিয়ানদের জন্য একটি
বিশেষ ইভেন্ট যা মূলত ছোট প্রকাশকদের তাদের কাজ প্রদর্শন করার জন্য একটি গুরিত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম ।
লন্ডন বুক ফেয়ার অন্যতম বৃহত্তম আন্তর্জাতিক আয়োজন । যা ইউরোপে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে শুধুমাত্র ফ্রাংকফুর্ট
বুক ফেয়ারের জন্য। কয়েকবার স্থান পরিবর্তন করার পর, গত কয়েক বছর ধরে এটি অলিম্পিয়াতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ।