শখের কলাই শাকের দুইটি রেসিপি!

 

 

শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যায় না, কে বলে! শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যায়, খুব সুন্দর করেই ঢাকা যায় অনেক মাছ। সেই শাক কোনটি, অবশ্যই কলাই শাক।
খেসারি/কলাই ডালজাতীয় ফসল। এই কলাই চাষ বাগানে কিংবা বাড়িতে করা যায় না। একে ধানের ক্ষেতে চাষ করতে হয় এবং তা কেবল শীতকালেই।
কলাইশাক মূলত কলাই গাছটির ডগাটুকু। খুব যত্ন করে ডগাটুকু কুচিকুচি করে রান্না করা হয়। স্বাদে অতুলনীয়। ইদানীং কলাই শাক পাওয়া দুঃষ্কর হলেও ঢাকা শহরে ভ্যানে কিংবা বাজারে চাইলেই পাওয়া যায়। তবে স্বাদ ঠিক রাখতে, রান্নাটাও হওয়া চাই চমৎকার। সেই কথা চিন্তা করেই কলাই শাকের দুইটি রেসিপি দেওয়া হলো। একদম সাধারণ রেসিপি। যেভাবে গ্রামের চাষী বউরা রান্না করে। সব রান্নায় অভিজাত্য মানায় না। কিছু কিছু রান্না সাদামাটায় সুস্বাদু।
শুধু শাক হিসেবে রান্না:
শুধু শাক হিসাবে রান্না করতে তেমন কিছুর দরকার হয় না। স্বাদও থাকবে অসাধারণ।
 
উপাদান:
•কলাই শাক (১ কেজি)
•পেয়াজ (৩ টি মাঝারি সাইজ)
•শুকনো মরিচ ভাজা(স্বাদমতো)
•কাঁচামরিচ (২ টা)
•তেল (পরিমাণমতো)
•লবণ (স্বাদমতো)
রন্ধন প্রণালি:
বাজারে কেনা শাকগুলোর শুধু কচি ডগাটা বেছে নিন। এক কেজি শাক তখন কমে অল্প হয়ে যাবে। এরপর বেছে নেওয়া শাকগুলো ঝাঁপিতে করে ধুয়ে নিন। খুব ভালো করে পানি ছাড়িয়ে নিন। এ শাকে বেশি পানি হলে স্বাদ থাকে না। এবার হাতের মুঠোয় গোছা গোছা করে ধরে ধারালো বটি দিয়ে কুচি কুচি করে কেটে নিন। যত ছোট কুচি হবে, খেতে ততই মজা হবে। সেইসাথে একটা প্যানে শুকনো মরিচ ভেজে গুঁড়ো করে নিন। এবার চুলায় একটা প্যান বসিয়ে দিন। প্যান গরম হলে পরিমাণ মতো তেল দিন। এরপর তেলের মধ্যে পেয়াজ ও কাঁচামরিচ দিয়ে ভালোভাবে নাড়ুন। যখন দেখবেন পেয়াজ কিছুটা নরম হয়েছে, তখন এরমধ্যে কুচি করা শাক দিয়ে দিন। এরপর স্বাদমতো লবণ এবং শুকনো মরিচ দিয়ে নেড়ে নিন। মনে রাখবেন, এই শাক চুলায় দিলে সিদ্ধ হয়ে তিন ভাগের এক ভাগ হয় প্রায়। তাই লবণ আর মরিচ দেবার ক্ষেত্রে বুঝে দেবেন। সেদ্ধ করার জন্য অতিরিক্ত কোনো পানি লাগবে না। শাক একটু বাদে বাদে নেড়েচেড়ে সেদ্ধ করে নামিয়ে রাখতে হবে। এই শাক বেশিক্ষণ চুলায় রাখলে টক হয়ে যায় এবং শাকটি অন্যসব শাকের মতো সিদ্ধ হবে না। যখন কমে তিন ভাগের একভাগ হবে তখনই বুঝতে হবে শাক সিদ্ধ হয়েছে। শাক থেকে পানি বের হলে, টানিয়ে ফেলুন। এরপর নামিয়ে পরিবেশন করুন। এক্ষেত্রে চুলার জ্বাল মিডিয়ামে রাখা ভালো, নতুবা পুঁড়ে যেতে পারে।
মাছ দিয়ে কলাইশাক রান্না:
মাছের সঙ্গে কলাইশাক রান্নাও সহজ এবং খেলে যেন বারবার খেতে মন চায়।
উপাদান:
•কলাই শাক
•মাছ (মাছ রান্নার যাবতীয় উপাদান জিরা এবং ধনে গুঁড়া বাদে)
•তেল
•লবণ
রন্ধন প্রণালি:
শাকগুলো আগের মতো করেই কুচি করে নিন। তারপর স্বাভাবিক রেসিপিতে মাছ রান্না শুরু করুন, মাছ কষানোর মাঝামাঝি পর্যায়ে এলে শাকগুলো তাতে ঢেলে দিন। সাবধানে একটু নেড়ে নিন, যাতে মাছ ভেঙে না যায়। এরপর পরিমাণ মতো পানি দিন। ঝোল কম রেখে রান্না শেষ করুন। এই শাক দিয়ে মূলত শোল-গজার, টাকি, টেংরা, পুঁটি, বোয়াল, চিতল, পাঙ্গাস, রুই সব ধরনের মাছই রান্না করা যায়। শীতের সকালে জমানো কলাই শাকে মাছের ঝোল কিন্তু খারাপ লাগবে না। একবার খেয়েই দেখুন।