আনন্দ টিভির পাবনা প্রতিনিধিকে নিজ বাসায় কুপিয়ে হত্যা

পাবনার নারী সাংবাদিক সুবর্ণা নদী। ছবিঃ ইন্টারনেট

পাবনা পৌর সদরের রাধানগর এলাকার পাওয়ার হাউস পাড়ায় একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন সুবর্ণা নদী (৩২)। সুবর্ণা নদী পেশায় একজন সাংবাদিক। তিনি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আনন্দ টিভিদৈনিক জাগ্রত বাংলা পত্রিকার পাবনা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতেন। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বাসার কলিং বেল বেজে উঠলে দরজা খোলেন  সুবর্ণা। দরজা খোলার সাথে সাথে অতর্কিত ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

সুবর্ণা আক্তার নদী পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার একদন্ত ইউনিয়নের বাড়ইপাড়া গ্রামের মৃত আয়েব আলীর মেয়ে। সুবর্ণা নদী আনন্দ টিভির এবং দৈনিক জাগ্রতবাংলা পত্রিকায় পাবনা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতেন। তার পাঁচ থেকে ছয় বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

সুবর্ণার বড় বোন চম্পা খাতুন জানান, এক ব্যক্তিকে স্বামী দাবি করে সুবর্ণা নদী মামলা করেছিলেন। মামলাটি আদালতে বিচারাধীন। এই মামলার কারণেই সুবর্ণাকে হত্যা করা হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন- ধারণা করা হচ্ছে পূর্ব বিরোধের জের ধরে তাঁকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। আমরা ঘটনা তদন্ত ও হত্যাকারীদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

 

সুত্র : প্রথম আলো