খুশকির সমস্যা দূর করুণ প্রাকৃতিক উপায়ে

সারা বিশ্বজুড়ে লক্ষ লক্ষ মানুষের চুলের সমস্যাগুলি অন্যতম হল ড্যান্ড্রফ বা খুস্কি। আয়ুর্বেদে রয়েছে এমন কয়েকটি উপকরণ যা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই আপনার চুলের যত্ন নেয়, খুশকির হাত থেকে রেহাই দেয়।সাধারণত মাথার ত্বক শুষ্ক হওয়ার ফলে চুলে খুশকি হয়। আর অনেক পদ্ধতি ব্যবহারের পরেও বারবার চুলে খুশকি ফিরে আসে। তাই এই সমস্যা সমাধানে বাজারের নামিদামি শ্যাম্পু ব্যবহার না করে প্রাকৃতিক উপায় খুশকি দূর করুন, যার কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। চলুন জেনে নেই চুলের খুশকি দূর করার কিছু প্রাকৃতিক উপায়।

নিম পাতা 

নিমে আছে অ্যান্টিফাঙ্গাল এবং অ্যান্টিভাইরাল উপাদান। নিমপাতার একটি পেস্ট তৈরি করুন, একবাটি দইয়ে এই পেস্ট মিশিয়ে মাথায় লাগান। ১৫-২০ মিনিট রেখে দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন। নিমের অ্যান্টিফাঙ্গাল উপাদান খুশকির সঙ্গে দারুণ ভাবে কাজ করে।

 আদা 

আদায় রয়েছে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল প্রপাটিজ, যা স্কাল্পে সিবামের মাত্রা কমিয়ে সংক্রমণের আশঙ্কা কমায়। আর একবার সংক্রমণ কমে গেলে খুশকিও সারাতে শুরু করে।

ডিমের সাদা অংশ ও লেবুর রস

ডিমের সাদা অংশে আছে প্রোটিন। একটি ছোট পাত্রে দু’টি ডিমের সাদা অংশ নিয়ে এক চামচ লেবুর রস মেশান। আধ ঘণ্টার জন্য চুলে লাগিয়ে রেখে দিন, তারপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। খুশকি খুব শীঘ্রই অদৃশ্য হয়ে যাবে। ডিমের সাদা অংশ প্রোটিন সমৃদ্ধ, যা চুলের ভাল স্বাস্থ্যের জন্য অপরিহার্য।

আমলকি ও তুলসী পাতা 

আমলকিতে আছে ভিটামিন সি, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটারি এবং অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান । ভিটামিন C- সমৃদ্ধ আমলকি খুশকি প্রতিরোধ করে। আমলকি গুঁড়ো করে পানি মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন। ৮ থেকে ১০ টা তুলসী পাতা অল্প করে পানি দিয়ে পেস্ট করে আমলকির পেস্টের সাথে মেশান। হাত দিয়ে চুলের গোড়ায় লাগান পেস্টটি। প্রায় ৩০ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানিতে শ্যাম্পু করে নিন।

মেথি বা মেথি বীজ

মেথিদানা উচ্চ প্রোটিন এবং নিকোটিনিক অ্যাসিডে সমৃদ্ধ যা চুল পড়া এবং ড্যান্ড্রাফ প্রতিরোধে সহায়তা করে, তা ছাড়াও চুলের শুষ্কতা, চুল ওঠা এবং চুলের পাতলা হয়ে যাওয়ার সমস্যাও কমায় মেথি। রাতে তিন চামচ মেথি বীজ ভিজিয়ে রাখুন। পরদিন সকালে গুঁড়ো করে নিন ওই মেথি। এবার মেথির এই পেস্টে এক চামচ লেবুর রস মেশান। চুলের গোড়া থেকে ডগা পর্যন্ত এই পেস্ট প্রয়োগ করুন। ৩০ মিনিটের জন্য রেখে শ্যাম্পু করে নিন।

ঘৃতকুমারী

ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরা চুলের খুশকি দূর করে চুল নরম করে। শ্যাম্পু করার আগে মাথায় ভালো করে অ্যালোভেরার রস দিয়ে ঘষুন। এরপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। এতে মাথার ত্বক ঠাণ্ডা থাকবে, চুলকানি দূর হবে এবং খুশকির সমস্যার সমাধান হবে।

রসুন

রসুন খুশকি প্রতিরোধে অনেক উপকারী। রসুনের পেস্ট কিছুক্ষণ চুলে মেখে রেখে ভালো করে ঘষুন। রসুনের গন্ধ দূর করতে চাইলে এর সঙ্গে মধু মিশিয়ে নিতে পারেন। এরপর শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন চুলে খুশকি দূর হওয়ার পাশাপাশি চুলের গোড়াও শক্ত হবে।