বাস-ট্রলির সংঘর্ষে ঝরে গেল শিশুসহ ছয় জনের প্রাণ

গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে বাসের সঙ্গে ট্রলির মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ছয়

গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে যাত্রীবাহী সাউদিয়া পরিবহনের সঙ্গে ইঞ্জিন চালিত ট্রলির মুখোমুখি সংঘর্ষে শিশুসহ ছয়জন নিহত হয়েছেন। ৩১ আগস্ট শুক্রবার রাত ১২টার দিকে গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়কের পলাশবাড়ী উপজেলার মহদিপুর ইউনিয়নের রাইস মিল নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সাউদিয়া পরিবহনের দরবার নামক বাসটি ঢাকা মেট্রো (ব ১১-৪২৪৯) গাইবান্ধা থেকে ঢাকা যাচ্ছিলো। পলাশবাড়ীর রাইস মিল এলাকায় পৌঁছলে বিপরিত দিক থেকে আসা হাবিবা হাকিম ফুড নামের একটি ইঞ্জিন চালিত ট্রলির এর সংঘর্ষ হয়। এ-সময় চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি  সড়কের পাশে একটি বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা খায়। এক পর্যায়ে খুঁটি হেলে গেলে বাসটি উল্টে সড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই ২ নারী ও ২ যুবক সহ চারজন এবং হাসপাতালে নেয়ার পথে এক শিশুসহ দুই জনের মৃত্যু হয়।  এছাড়া এ ঘটনায় আরও ১০ জন আহত হন।

খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে আহতদের উদ্ধার করে পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। আহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। বাস ও ট্রাক্টরের চালক এবং তাদের সহকারীরা পলাতক।

পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন বাসের যাত্রী সালমা বেগম জানান, বাসে সাঘাটা, সদর ও সাদুল্যাপুরের যাত্রীরা ছিল। বাসের অধিকাংশ যাত্রীই শ্রমিক। ঈদের ছুটি শেষে তারা ঢাকায় ফিরছিলেন। বৃষ্টির সময় চালক দ্রুতগতিতে বাস চালাচ্ছিলেন। হঠাৎ করেই জোরে শব্দের পর বাস উল্টে যায়। এরপর আর কিছুই জানেন না তিনি।

পলাশবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান  জানান, দুর্ঘটনায় শিশুসহ ছয় জন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে চাররজনকে উদ্ধার করে পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করা হয়েছে। খাদে পড়া বাসটি উদ্ধার করছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। নিহতদের লাশ গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানায় রাখা হয়েছে।