রাঙ্গামাটিতে অন্যায়কে লাল কার্ড নৈতিকতাকে সবুজ কার্ড

রাঙ্গামাটিতে মাদক, ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ ও দূর্নীতিকে লাল কার্ড প্রদর্শন করেছে শিক্ষার্থীদের। ছবিঃ http://chtnews24.com

শিক্ষার্থীদের টিফিনের টাকায় পরিচালিত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘ। লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘের আয়োজনে রাঙ্গাামাটির শাহ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে শিক্ষার্থীদের শপথ এবং মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়। এ সময় মাদক, ইভটিজিং বাল্যবিবাহ ও দূর্নীতিকে লাল কার্ড প্রদর্শন এবং দেশপ্রেম, মানবতাকে সবুজ কার্ড প্রদর্শন করে শপথ নিয়েছে হাজারো শিক্ষার্থী।

শনিবার (১ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় রাঙ্গাামাটির শাহ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ শপথ এবং মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়।

অনুষ্ঠানে লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘের প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রীয় সভাপতি কাওসার আলম সোহেলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. নজরুল ইসলাম। তিনি শিক্ষার্থীদের মাদক, ইভটিজিং বাল্যবিবাহ ও দুর্নীতি থেকে দূরে থাকতে  ছেলেদের ২১ ও মেয়েদের ১৮ বয়সের পূর্বে বিবাহ না করতে সদা সত্য কথা বলতে শিক্ষার্থীদের শপথ বাক্য পাঠ করান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘের সামাজিক আন্দোলনটি সত্যি প্রসংশনীয়।’ তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘তোমরা আগামী প্রজম্মের ভবিষ্যৎ; তাই আজ তোমরা যে শপথ নিয়েছো তা মনে-প্রাণে রক্ষা করে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।’

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. জাহাঙ্গীর আলম, রাঙ্গামাটি প্রেস ক্লাবের সভাপতি মো. সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল, রাঙ্গামাটি রিপোর্টার্স ইউনিটির অর্থ সম্পাদক এম. কামাল উদ্দিন, শাহ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মুজিবুর রহমান ও রাঙ্গামাটি স্কাউটের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আবছার ও সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন নিলয় ।

লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘের প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রীয় সভাপতি কাওসার আলম সোহেল বলেন, ‘গত ৭মার্চ ৬মাসের সফরে বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী এলাকা  পঞ্চগড়ের তেতুলিয়া থেকে সামাজিক ব্যাধি প্রতিরোধে এ সব ভ্রাম্যমান কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছি। টিফিনের জমানো টাকা বাঁচিয়ে শিক্ষার্থীদের সচেতন করার লক্ষে এই সব কার্যক্রম হাতে নিয়েছে লাল সবুজ সংঘ। কক্সবাজার জেলার টেকনাফ এ আনুষ্ঠানিক ভাবে কার্যক্রমটি সমাপ্ত হবে।

কাওসার আরও বলেন, এ সংগঠনটি ২০১১ সালে আমার ছোট বোন ফারজানা আক্তারের সেনা কল্যাণ বৃত্তির টাকা, এক জোড়া কানের দুল বিক্রির টাকা এবং টিফিনের জমানো টাকা দিয়ে কুমিল্লার দাউদকান্দিতে এ সংগঠনের কার্যক্রম শুরু হয়।

৭ই মার্চ পঞ্চগড়ে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানের ৬২ তম জেলা রাঙ্গামাটি। সোমবার বান্দরবান কার্যক্রম পরিচালনায় হবে ৬৩তম জেলা। আগামী ৮সেপ্টেম্বর কক্সবাজার জেলার টেকনাফ এ আনুষ্ঠানিক ভাবে কার্যক্রমটি সমাপ্ত হবে।