মিরসরাইয়ে ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ গেল ২ বাস যাত্রীর, আহত ২০

বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের সাথে এস আলম পরিবহনের বাসের সংঘর্ষ। ছবি: ফেইসবুক

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ময়মনসিংহ থেকে ছেড়ে আসা বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে এস আলম পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় দুইজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ২০ যাত্রী। রবিরার (০২ সেপ্টেম্বর) ভোর ৪ টার দিকে এই সংঘর্ষ হয়।

ময়মনসিংহ থেকে ছেড়ে আসা বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেন মিরসরাইয়ের বারৈয়ারহাট রেলগেট পার হওয়ার সময় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা খাগড়াছড়িগামী এস আলম পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসটিকে ধাক্কা দিলে গাড়িটি ট্রেনের সামনের অংশে আটকে যায়। দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া বাসটিকে  ৪০০ মিটার দক্ষিণে নিয়ে ট্রেনটি থেমে যায়।

নিহত এক জনের পরিচয় পাওয়া গেলেও অন্য জনের পরিচয় এখনো জানা যায়নি। নিহত সুনীল চাকমা (৬০) খাগড়াছড়ি ডিসি অফিসের অফিস সহকারী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তাঁর বাড়ি খাগড়াছড়ির মধুপুর গ্রামে। মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কর্মীরা হতাহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করে। দুর্ঘটনায় এক লেনে প্রায় আড়াই ঘণ্টা ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। এখন ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানা গেছে।

আহত ব্যক্তিরা হলেন মো. জায়েল (২২), মংসিং প্রু মারমা (৪৭), আবাদুল করিম (২৭), লিটন চাকমা (২৪), কমিস্ট ত্রিপুরা (১৯), দীপ্তি চাকমা (৫৬), কর্ম বিকাশ চাকমা (৬০), দেশি ত্রিপুরা (২৮), বাবু ত্রিপুরা (২৩), নিরঞ্জন ত্রিপুরা (২৯), সুজন ত্রিপুরা (২৮), প্রমি ত্রিপুরা (২৪), লোশন দেওয়ান (২৩), পূজন চাকমা (৬০), মীনা চাকমা (৩৫), কুসুম বীথি (৬০) এবং  মো. মারুফ। মো. মারুফ পটুয়াখালীর বাসিন্দা।

মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কর্মকর্তা রবিউল আজম জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার তৎপরতা শুরু করি। সুনিমল চাকমা নামে এক বাস যাত্রী হাসপাতালে মারা গেছে। আহত হয়েছে ২০ জন। কিছু সময় এক লেনে ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকলেও এখন স্বাভাবিক রয়েছে।

সীতাকুণ্ড রেল পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) নুর মোহাম্মদ  বলেন, ‘দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে এসে উদ্ধার তৎপরতায় যোগ দিই। পুরো ঘটনা তদন্ত করে দেখা হবে।’