কিডনি ও ক্যান্সার রোগের নেপথ্যে ভেজাল খাদ্য

ভেজাল খাবার কিডনি ও ক্যান্সার রোগের অন্যতম প্রধান কারণ। কিডনি ৭০ থেকে ৮০ ভাগ বিকল হওয়ার পর রোগীরা তা বুঝতে সক্ষম হয়। কিডনি ও ক্যান্সার রোগ থেকে মুক্ত থাকতে হলে ভেজাল খাবার ত্যাগ করার পাশপাশি ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা জরুরি।

মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হোটেলে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন চিকিৎসক ও রোগ বিশেষজ্ঞরা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন, মহান স্বাধীনতা দিবস ও বিশ্ব কিডনি দিবস উপলক্ষে মাসব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি উপলক্ষে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে রাজধানীর ইনসাফ বারাকাহ কিডনি অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতাল।

এতে কিডনি ও ক্যান্সার রোগসহ মানবদেহের বিভিন্ন জটিল ও কঠিন রোগের কারণ, প্রতিকার, রোগ নির্ণয়, চিকিৎসা ব্যবস্থা ও পদ্ধতিসহ স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিষয়ে কথা বলেন দেশের খ্যাতনামা কিডনি রোগ বিশেষজ্ঞ এবং ইনসাফ বারাকাহ কিডনি অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অধ্যাপক ডা. ফখরুল ইসলাম।

এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন কিডনি রোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মো. ফিরোজ খান, হাসপাতালের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আলতাফ হোসেন, হাসপাতালের কর্মকর্তা মো. সোহরাব আকন্দ।

ডা. ফখরুল ইসলাম বলেন, বিশ্বের যেকোনো দেশের তুলনায় আমাদের দেশে ক্যান্সার ও কিডনি রোগসহ বিভ্ন্নি জটিল রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিনদিন বেড়ে চলেছে। এর অন্যতম কারণ হচ্ছে অতিমাত্রায় রাসায়নিকযুক্ত ভেজাল খাদ্য। ভেজাল খাদ্য প্রতিরোধ ও পরিহারে সবার মধ্যেই জনসচেতনতা বাড়াতে হবে। কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে কিডনি রোগ সম্পর্কে আগে থেকেই একটা ধারণা নেওয়া যেতে পারে। সেই সঙ্গে এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার আগেই সচেতন হওয়া যায়।

অধ্যাপক ডা. ফখরুল ইসলাম জানান, ইনসাফ বারাকাহ কিডনি অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতালে আগামী ১৪ মার্চ থেকে ১৩ এপ্রিল একমাস প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা পরামর্শ দেওয়া হবে। ক্যাম্পে রেজিস্ট্রেশনভুক্ত রোগীদের কিডনি সম্পর্কিত সিরাম ক্রিটিনিন, ইউরিন আর/ই, পরীক্ষা ও ডেন্টাল পরীক্ষা-নিরীক্ষা বিনামূল্যে করা হবে। ১০ জন হতদরিদ্র গরীব রোগীকে বিনামূল্যে অস্ত্রোপচার করা হবে। বিভিন্ন অস্ত্রোপচারে ২৫ শতাংশ, পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ৫০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হবে এবং ৩০ হাজার টাকার প্যাকেজে কিডনির পাথর অপারেশন ও ২২ হাজার টাকায় প্রোস্টেট অপারেশন করা হবে।

ডা. ফখরুল জানান, আগামী ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের জন্মদিন ও শিশু দিবস উপলক্ষে শিশু বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মাধ্যমে এবং ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন বিষয়ের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মাধ্যমে বিনামূল্যে চিকিৎসা পরামর্শ দেওয়া হবে। কিডনি রোগ নিয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে এক লাখ লিফলেট বিতরণ, ফেস্টুন, ব্যানার প্রদর্শন, পোস্টার লাগানো হবে। সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য মাত্র এক হাজার টাকায় পরীক্ষা-নিরীক্ষা (সিবিসি, সিরাম ক্রিটিনিন, আরবিএস, ইউরিন আর/ই,ইসিজি ও আল্ট্রাসনোগ্রাম) করার সুযোগ থাকবে।