কুমিল্লায় বাস পোড়ানোর মামলায় জামায়াত নেতা ডা. তাহের কারাগারে

কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রামে বাসে আগুন দিয়ে আটজন হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় জামায়াত নেতা ডা. সৈয়দ আবদুল্লাহ মোহাম্মদ তাহেরকে কারাগারে পাঠিয়েছে  আদালত।

বাসে পেট্রোল মেরে মানুষ পোড়ানোর মামলায় জামায়াত নেতা ডা. সৈয়দ আবদুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের কারাগারে। ছবি- ইউএনবি

বাসে পেট্রোল মেরে মানুষ হতাহতে দায়ের করা দুটি মামলায় বুধবার কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আত্মসর্মপণ করে জামিন আবেদন করেন এই জামায়াত নেতা।

শুনানি শেষে আদালতের বিচারক আলী আকবর জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

একই সঙ্গে কিডনি রোগে আক্রান্ত থাকায় আদালত ডা. তাহেরের সুচিকিৎসা নিশ্চিতের জন্য জেল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ প্রদান করেন।

উল্লখ্যে, ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ভোরে বিএনপি-জামায়াতসহ ২০ দলীয় জোটের ডাকা হরতাল-অবরোধ চলাকালে কক্সবাজার থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আইকন পরবিহনের একটি নৈশ কোচ চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুর নামক স্থানে পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা বাসটি লক্ষ্য করে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে। এতে আগুনে পুড়ে ঘটনাস্থলে ৭ জন ও হাসপাতালে নেয়ার পর ১ জনসহ মোট ৮ যাত্রী মারা যায়।

ওই ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই নুরুজ্জামান হাওলাদার বাদী হয়ে পরদিন ৩ ফেব্রুয়ারি রাতে হত্যা ও  বিস্ফোরক আইনে পৃথক ২টি মামলা দায়ের করেন।

এ দুটি মামলায় জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা ও চৌদ্দগ্রামের সাবেক সংসদ সদস্য ডা. সৈয়দ আব্দুল্লাহ মো. তাহরকে প্রধান আসামি  এবং  খালেদা জিয়াসহ  বিএনপির ৬ নেতাকে আসামি করা হয়।