জনপ্রিয় অভিনেতা টেলিসামাদ আর নেই

চলচ্চিত্রের শক্তিমান কৌতুক অভিনেতা টেলিসামাদ আর নেই। স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি আজ দুপুরে শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাইহি রাজিউন)। গণমাধ্যমকে খবরটি নিশ্চিত করেছেন টেলি সামাদের স্ত্রী রেখা সামাদ। তিনি মিডিয়াকে জানান, গত পরশু দিন শারীরিক অবস্থার অবনতির কারণে তাকে স্কয়ার  হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। আজ দুপুর ২টায় ডাক্তার ফোন করে জানালেন তিনি আর নেই। কয়েকদিন আগেও মানবজমিনের সঙ্গে কথা বলার সময় টেলিসামাদ বলেছিলেন, আমি ভালো নেই। কেউ আমার খবর নেয়ার প্রয়োজন মনে করে না। ঘরে বসেই সময় কাটছে আমার।

চলচ্চিত্রের শক্তিমান কৌতুক অভিনেতা টেলিসামাদ। ছবি-সংগৃহিত।

টেলিসামাদ ১৯৪৫ সালের ৮ই জানুয়ারি ঢাকার বিক্রমপুরে জন্মগ্রহণ করেন। দাপটের সঙ্গে ঢাকাই চলচ্চিত্র, টিভি নাটক এবং মঞ্চে অভিনয় করেন শক্তিমান অভিনেতা টেলিসামাদ। এছাড়াও কাজী হায়াত পরিচালিত ‘মনা পাগলা’ ছবির সংগীত পরিচালনা করেছেন তিনি। নজরুল ইসলামের পরিচালনায় ১৯৭৩ সালের দিকে ‘কার বৌ’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে এই অঙ্গনে পথচলা শুরু তার। তবে সর্বাধিক জনপ্রিয়তা অর্জন করে তার অভিনীত ‘পায়ে চলার পথ’ ছবিটি। এরপর অসংখ্য ছবিতে অভিনয় করেছেন। অভিনয়ের বাইরে ৫০টির বেশি ছবিতে তিনি গান করেছেন।

টেলিসামাদ পড়াশোনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগে। সত্তরের দশক থেকে তাকে পর্দায় দেখেছেন দর্শকরা। এ যাবৎ অসংখ্য চলচ্চিত্র-নাটকে নানা ধরনের চরিত্রে তার দুর্দান্ত অভিনয় দর্শকের মনে দাগ কেটে আছে দারুণভাবে। নিজের অভিনয় শৈলি দিয়ে দর্শকদের বিনোদন ও হাসিতে সারাক্ষণ মাতিয়ে রাখতেন টেলিসামাদ। একসময় কমেডিয়ান বললেই চলে আসত তার নাম। সমানতালে অভিনয় করেছেন সিনেমায়, টেলিভিশনে। পেয়েছেন তুমুল জনপ্রিয়তা।

টেলিসামাদের আসল নাম আবদুস সামাদ। বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) ক্যামেরাম্যান মোস্তফা মামুন তার আবদুস সামাদ বাদ দিয়ে টেলিসামাদ নামটা দিয়েছিলেন। সেই থেকে তাকে সবাই টেলিসামাদ নামেই চেনে।