যুক্তরাষ্ট্রই বিশ্ব সন্ত্রাসবাদের প্রকৃত নেতা : রুহানি

ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে প্রচারিত এক ভাষণে প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রই বিশ্ব সন্ত্রাসের মূল নেতা। মার্কিনীদের প্রতি তিনি প্রশ্ন করেন, ইরানের রেভ্যুলেশনারি গার্ডকে সন্ত্রাসী বলার আপনারা কে? তিনি বলেন, আপনারা চান, এ অঞ্চলে সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোকে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে। মূলত আপনারাই বিশ্ব সন্ত্রাসের মূল নেতা।

এর আগে গতকাল সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের ‘এলিট ফোর্স’ হিসেবে পরিচিত রেভ্যুলেশনারি গার্ডকে (আইআরজিসি) বিদেশি সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে তালিকাভুক্ত করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ওই পদক্ষেপের পাল্টা জবাব দিতেই এমন ঘোষণা দেয় ইরান। এক বিবৃতিতে এসএনএসসির পক্ষ থেকে ওয়াশিংটনের এমন পদক্ষেপকে অবৈধ ও নির্বোধ কর্মকাণ্ড বলে উল্লেখ করা হয়েছে। একই সাথে যুক্তরাষ্ট্রকে ‘সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক’ দেশ হিসেবেও উল্লেখ করা হয়।

আরও পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রেকে প্রত্যাখান করে রাশিয়ার কাছ থেকে আরও এস-৪০০ নেবে তুরস্ক

এসএনএসসি আরও জানায়, যুক্তরাষ্ট্র এবং এর মিত্র দেশগুলো সব সময় পশ্চিম এশিয়ায় চরমপন্থী ও সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মার্কিন বাহিনী সেন্টকমকে সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকাভুক্ত করতে প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ।

আরও পড়ুন: শাসকরা বেশি মিথ্যা বললে দেশে দুর্যোগ নেমে আসে : রিজভী

ইরানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের এমন সিদ্ধান্তের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো কোনো দেশ অন্য দেশের সামরিক বাহিনীকে আনুষ্ঠানিকভাবে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে আখ্যা দিল।

ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি বলেছেন, ইহুদিবাদী ইসরাইল ও আমেরিকা হচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যে সন্ত্রাসের মূল কারণ। ইরানের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় সিস্তান-বালুচিস্তান প্রদেশে ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর সদস্যদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জানিয়ে প্রেসিডেন্ট রুহানি একথা বলেছেন।

প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, ইসরাইল ও আমেরিকা মধ্যপ্রাচ্যে সন্ত্রাসের মূল কারিগর। তিনি আঞ্চলিক ও প্রতিবেশী দেশগুলোকে নিজেদের দায়িত্ব পালন এবং প্রতিবেশীদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার জন্য নিজেদের ভূমি ব্যবহার ঠেকানোর আহ্বান জানান।