এলআরবিতে নয় বালাম গাইবে ‘বালাম অ্যান্ড লিগ্যাসি’ ব্যান্ডে

আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুর পর থেকে এলআরবি ব্যান্ডটি নিয়ে প্রধানতম প্রশ্ন ছিল- এটি আবারও মঞ্চে ফিরবে নাকি বিলুপ্ত হয়ে যাবে?
এর প্রায় মাস ছয়েক পর গত ৫ এপ্রিলে এলআরবি ভক্তদের জন্য সুখবর আসে। রাজধানীর একটি রেস্টুরেন্টে আনুষ্ঠানিকভাবে পুনর্গঠন করা হয় ব্যান্ড এলআরবি। নতুন লাইনআপে মূল গায়ক হিসেবে যুক্ত হন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী বালাম।

এবার ব্যান্ডের গিটারিস্ট আবদুল্লাহ আল মাসুদ জানালেন, এলআরবি নয়, এখন থেকে ‘বালাম অ্যান্ড লিগ্যাসি’ নামে মঞ্চে আসবেন তারা। ব্যবহার করা হবে না ‘এলআরবি’ নামটি।

কারণ হিসেবে  তিনি ব্যাখ্যা করলেন, ‘এলআরবি ব্যান্ডের প্রাণপুরুষ আইয়ুব বাচ্চু প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা ও সম্মান রেখে তার স্মৃতিকে অম্লান রাখতে আমরা কাজ করে যেতে চাই। তাই এতে বালামকে যুক্ত করা। কিন্তু প্রয়াত আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের সদস্যরা এলআরবি নামটি ব্যবহার না করার জন্য আমাদের কাছে বিশেষ অনুরোধ জানিয়েছেন। বসের পরিবারের প্রতি সম্মান জানিয়ে আমরা নামটি আর ব্যবহার করব না। এখন থেকে আমরা বালাম অ্যান্ড লিগ্যাসি নামে গান পরিবেশন করব।’
এরপর একটি লিখিত বক্তব্য সংবাদ মাধ্যমের কাছে পাঠায় ব্যান্ডের সদস্যরা।

সেখানে বলা হয়, আইয়ুব বাচ্চু একটি কথা বারবার বলতেন, ‘শো মাস্ট গো অন’। তাই তার পরিবারের অনুরোধে এলআরবি নাম ব্যবহার না করে ও আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি সম্মান জানিয়ে নতুনভাবে কাজ চালিয়ে যাবেন ব্যান্ডের সদস্যরা। এখন থেকে এলআরবি ব্যান্ডের সদস্যরা বালাম অ্যান্ড লিগ্যাসি নামে মঞ্চ মাতাতে আসবেন।
ব্যান্ডটির বর্তমান লাইনআপ দাঁড়ালো: বেজ গিটার- স্বপন, গিটার- মাসুদ, ভোকাল ও গিটার- বালাম, ড্রামস- রোমেল ও সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার- শামীম আহমেদ।
১৯৯০ সালের ৫ এপ্রিল আইয়ুব বাচ্চুর হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হয় এলআরবি। শুরুতে ব্যান্ডটির নাম রাখা হয়েছিল ‘লিটল রিভার ব্যান্ড (এলআরবি)’। ১৯৯৭ সালে নামের পরিবর্তন আসে। রাখা হয় ‘লাভ রান্‌স ব্লাইন্ড (এলআরবি)’। পরবর্তী সময়ে এ নামেই আইয়ুব বাচ্চু ব্যান্ডটিকে আরও সমৃদ্ধ করেছেন। দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় ও নিরীক্ষামূলক গান! যা বাংলা সংগীতে নতুন অধ্যায় তৈরি করেছিল।

দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যান্ড এলআরবি’র দলনেতা আইয়ুব বাচ্চু ছিলেন একাধারে গায়ক, গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার ও সংগীত পরিচালক। গিটারের জাদুকর হিসেবে আলাদা সুনাম ছিল তার। ভক্তদের কাছে তিনি ‘এবি’ নামেও পরিচিত।