তুরস্ক কার কাছ থেকে তেল কিনবে তা আমেরিকা বলে দেবে কেন: তুরস্কের প্রশ্ন

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান  আজ বুধবার জানান, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বৈঠক করার জন্য এপয়েন্টমেন্ট চেয়েছেন। ইরান থেকে তেল আমদানিতে নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে ট্রাম্পকে কঠোরবার্তা দিয়েছেন এরদোগান।

এদিকে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লু বলেছেন, আমেরিকা ইরানের কাছ থেকে কেনা বন্ধ করে অন্য দেশ থেকে তেল নেয়ার যে প্রস্তাব দিয়েছে তা হাস্যকর। মঙ্গলবার আঙ্কারায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ছবি-সংগৃহিত।

চাভুসওগ্লু বলেন, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও ইরানি তেলের পরিবর্তে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের মতো দেশগুলো থেকে তেল নেয়ার জন্য আমাদেরকে প্রস্তাব দিযেছে। এই প্রস্তাব হাস্যকর। কারণ তুরস্ক কার কাছ থেকে তেল কিনবে তা বলে দেওয়ার অধিকার রাখে না।

তিনি বলেন, ইরানের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা গোটা মধ্যপ্রাচ্যের জন্য বিপজ্জনক। কারণ অন্য কোনো দেশের তেল দিয়ে ইরানি তেলের শূন্যতা পূরণ করা সহজ হবে না।

তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইরানের তেল কেনা বন্ধ করতে আমেরিকা অন্য দেশগুলোর ওপর যে চাপ সৃষ্টি করছে আঙ্কারা সেটার বিরোধী।

মার্কিন সরকার গত বছরের নভেম্বরে ইরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলেও আটটি দেশকে ইরান থেকে তেল কেনার ক্ষেত্রে ছয় মাসের জন্য ছাড় দেয়। সম্প্রতি ওয়াশিংটন ঘোষণা করেছে, আগামী ২ মে ছয় মাসের সে মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর তা আর নবায়ন করা হবে না। অর্থাৎ আমেরিকার দৃষ্টিতে এখন থেকে বিশ্বের কোনো দেশ আর ইরানের কাছ থেকে তেল আমদানি করতে পারবে না।