তুরস্ক আইনের শাসনে বিশ্বাস করে, কারো হুকুমে চলে না: এরদোগান

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সমালোচনা করে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান বলেছেন, যেসব পশ্চিমা দেশ তুরস্কের অভ্যুত্থান ষড়যন্ত্রকারীদের আশ্রয় দেয় তাদের কাছ থেকে গণতন্ত্রের লেকচার শুনতে চাই না। ইস্তাম্বুল নগরীর পুনর্নির্বাচন নিয়ে পশ্চিমাদের বিরোধীতার জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

এরদোগান বলেন, ‘তুরস্ক একটি স্বাধীন, স্বার্বভৌম গণতান্ত্রিক দেশ যারা আইনের শাসনে বিশ্বাস করে। তুরস্ক কারো হুকুমে চলে না। শনিবার ইস্তাম্বুলে একটি ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন। খবর ডেইলি সাবাহ’র।

ছবি-সংগৃহিত।

গত সোমবার তুরস্কের প্রধান নির্বাচনী বোর্ড ইস্তাম্বুলে পুণরায় নির্বাচন অনুষ্ঠানের ঘোষণা দেয়। গত ৩০ মার্চের নির্বাচনের পর ক্ষমতাসীন জাস্টিস এন্ড ডেভলপমেন্ট পার্টির(একেপি) দাবির মুখে নতুন করে নগরীটিতে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নেয় নির্বাচন কমিশন। ইস্তাম্বুলের নির্বাচনে অনিয়ম হয়েছে বলে শুরু থেকেই দাবি করে আসছে প্রেসিডেন্ট এরদোগানের দল একেপি। আগামী ২৩ জুন সেখানে নতুন করে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বক্তৃতাকালে গাজায় ইসরাইলের বোমা হামলার নিন্দা জানিয়ে এরদোগান বলেন, ইসরাইল মানবিক সাহায্য সংস্থার দফরত, মিডিয়া হাউজে বোমা হামলা চালালেও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় নিরব রয়েছে। তারা আনাদোলু সংস্থার দফতরে হামলা চালিয়েছে যাতে তাদের নৃশংসতা বিশ্বের কাছে তুলে ধরা না যায়।

তিনি বলেন, ইসরাইলের নোংরা কর্মকাণ্ড ফাঁস হওয়া ঠেকাতে তুর্কি রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনাদোলুর গাজা অফিসে হামলা করা হয়েছে।

শনিবার সন্ধ্যায় গাজায় তুরস্কভিত্তিক আন্তর্জাতিক বার্তাসংস্থা আনাদোলুর অফিসে বোমা হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি যুদ্ধবিমান। এই হামলায় ভবনটি ক্ষতিগ্রস্থ হলেও কেউ হতাহত হয়নি।