কৃষকদের কাছ থেকে ধান কিনে দাম বাড়ানোর সুযোগ নেই: কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, ‘ধানের দাম অস্বাভাবিকভাবে কমে গেলেও এই মুহূর্তে কৃষকদের কাছ থেকে ধান কিনে দাম বাড়ানোর তেমন সুযোগ নেই। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীও খুব চিন্তিত। তবে অন্য কোনো উপায়ে সমস্যা সমাধান করা যায় কিনা সরকারের উচ্চ মহলে আলোচনা চলছে।’

শনিবার রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে ‘জলবায়ু পরিবর্তন : কৃষি খাতের চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক এক সেমিনারে মন্ত্রী এই মন্তব্য করেন। তিনি বলেন,  ‘ধানের দাম বাড়ানোর একমাত্র উপায় হল, চাল রপ্তানি করা। এটাও আমাদের চিন্তাভাবনা করে করতে হচ্ছে।’

বক্তব্য রাখছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আবদুর রাজ্জাক। ছবি-সংগৃহিত।

কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘গতবারের মজুদ এখনো অবশিষ্ট আছে ৮/১০ লাখ টন। মিলাররাও গতবার আমাদের অনুরোধে ব্যাংক থেকে টাকা নিয়ে ধান কিনে গুদামে রেখেছেন। তাঁরাও সেগুলো এখন বিক্রি করতে পারছেন না। কৃষি খাতে বিপ্লব হয়েছে। এটা ভালো দিক।’

এবার শুরু থেকেই ধানের দাম নিয়ে কৃষকদের মধ্যে অসন্তোষ রয়েছে। সরকার প্রতিকেজি ২৬ টাকা দরে কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনার ঘোষণা দিলেও কৃষক সেই দাম পাচ্ছে না। কৃষকের অভিযোগ, ধান বেচে যে দাম পাচ্ছেন তাতে খরচও উঠছে না।

এ নিয়ে সরকারের দুশ্চিন্তার কথা অবশ্য গত বৃহস্পতিবারও সচিবালয়ে বলেছিলেন কৃষিমন্ত্রী। সেই সময় তিনি আরো বলেছিলেন, আপাতত ঝুঁকি নিয়ে হলেও চাল রপ্তানির সক্রিয় চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। আর স্থানীয় পর্যায়ে রাজনৈতিক প্রভাবের কারণে সরকার কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি ধান-চাল কিনতে পারে না বলে জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, সারাদেশ থেকে চাষীদের নির্বাচন করা কঠিন বলেই সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান বা চাল কেনা সম্ভব হচ্ছে না। ধানের দাম অস্বাভাবিকভাবে কম হলেও দ্রুত এর সমাধান কঠিন। তবে, এ সংকট নিরসনে চাল রপ্তানির চিন্তাভাবনা করছে সরকার।