রুশ হামলা প্রতিরোধে সিরিয়ার পাশে তুরস্ক

শনিবার সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাসার আল আসাদ বিরোধীরা জানিয়েছে, রাশিয়া-সমর্থিত হামলা থেকে আত্মরক্ষায় সহায়তা করতে সিরিয়ার কয়েকটি মূলধারার বিদ্রোহী গোষ্ঠীকে নতুন অস্ত্র সরবরাহ করেছে তুরস্ক।- খবর রয়টার্সের

এরপর উত্তেজনা কমিয়ে আনতে ওয়ার্কিং গ্রুপের সাম্প্রতিক বৈঠকগুলোতে রাশিয়াকে বোঝাতে ব্যর্থ হলে বিদ্রোহীদের অস্ত্র সরবরাহ বাড়িয়ে দিয়েছে তুরস্ক।

ইতিমধ্যে বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রিত জাবাল আল জাইয়ার কাছে উত্তর হামায় একটি সেনা ঘাঁটিতে তুরস্কের সামরিক বহর পৌঁছে গেছে।

সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণাধীন বিশাল অঞ্চলকে উদ্ধার করতে গত মাসে হামলা শুরু করেছে আসাদ বাহিনী। বিদ্রোহীরা চলমান অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘন করেছে বলে অভিযোগ করে চালানো সরকারি হামলা হামলায় ইদলিব ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে বোমা হামলায় বেসামরিক লোকজন নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে পালিয়ে যাচ্ছেন।

অস্ত্র সরবরাহের মাধ্যমে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় সিরিয়ায় নিজের প্রভাব অক্ষুণ্ণ রাখতে প্রস্তুতির আভাস দিয়েছে তুরস্ক। এসব অঞ্চলের কয়েক ডজন সামরিক ঘাঁটিতে সেনা উপস্থিতি জোরদার করেছে আংকারা।

কয়েক ডজন সাঁজোয়া যান, গ্রাড রকেট লাঞ্চার, ট্যাংকবিধ্বংসী গাইডেড ক্ষেপণাস্ত্র, টিওডব্লিউ ক্ষেপণাস্ত্র বিদ্রোহীদের সরবরাহ করা হয়েছে। এতে কাফার নাবৌদা শহরের কিছু কৌশলগত স্থান নিজেদের হাতছাড়া হওয়া থেকে রক্ষা করতে পেরেছেন বিদ্রোহীরা।

তুর্কি সমর্থিত ন্যাশনাল লিবারেশন ফ্রন্টের মুখপাত্র ক্যাপ্টেন নাজি মুস্তফা তুরস্কের নতুন অস্ত্র সরবরাহের বিষয়ে কিছু বলেননি। তিনি বলেন, বিদ্রোহীদের কাছে তুরস্কের ভাইদের সমর্থনে ট্যাংকবিধ্বংসী সাঁজোয়া যানসহ বিপুল অস্ত্রভাণ্ডার রয়েছে।