ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ছেন কাদের সিদ্দিকী!

অবস্থান পরিষ্কার করার জন্য ৮ জুন পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার আল্টিমেটাম দিয়েছেন ফ্রন্ট শরিক কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী।

জানা গেছে, পূর্ব ঘোষিত আল্টিমেটাম অনুযায়ী আসন্ন রোজার ঈদের পর জুনের প্রথমার্ধ্বেই ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে কাদের সিদ্দিকীর দল।

গত ৯ মে এক সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে থাকা অসংগতি আগামী ৮ জুনের মধ্যে নিরসন করা না হলে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ঐক্যফ্রন্ট থেকে বেরিয়ে যাবে বলে হুমকি দিয়ে রেখেছেন কাদের সিদ্দিকী। হুমকি দেওয়ার তারিখেই ড. কামাল হোসেনকে চিঠি দিয়ে একই কথা বলেছে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ।

ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, নির্বাচন পরবর্তী পর্যায়ে ঐক্যফ্রন্টকে সঠিকভাবে পরিচালনা করা যায়নি। বিশেষ করে, নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করার পর কারও সঙ্গে আলোচনা না করেই সাতজন শপথ নিলেন। ঐক্যফ্রন্ট পরিচালনায় কেন এই দুর্বলতা?

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার বীরপ্রতীক জানান, সন্তোষজনক জবাব না পেলে এবং অসঙ্গতিগুলো দূর করার উদ্যোগ নেওয়া না হলে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ঐক্যফ্রন্ট থেকে বেরিয়ে যাবে।

ঐক্যফ্রন্টের একটি শরিক দলের প্রধান নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘নির্বাচনের পর থেকেই আমাদের সিদ্ধান্ত ছিল শপথ না নেওয়ার। সেখানে বিএনপি ও গণফোরামের নির্বাচিত সাতজন শপথ নিয়ে সংসদে যাওয়ায় বিষয়টি নিয়ে আমরা এক ধরনের ধন্দে পড়ে গেছি। বিএনপি ও গণফোরামের বিষয়টি দ্রুত পরিষ্কার করা উচিত।’