নারীকে রাস্তায় ফেলে লাথি মারলেন বিজেপি’র এমপি

এলাকার পানি সংকট নিয়ে কথা বলতে গিয়েছিলেন নীতু তেজওয়ানি৷ কিন্তু সমস্যার প্রতিকার দূরে থাক, উল্টো ওই নারীর উপর সদলে ঝাঁপিয়ে পড়লেন বিজেপির এমপি বলরাম থাবানি৷ তাঁকে রাস্তায় ফেলে লাথি মারতে থাকলেন তাঁরা৷

হেনস্তার এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নিজের রাজ্য গুজরাটের আহমেদাবাদ৷ বলরাম সেখানকার নারোদা এলাকার এমপি।

এভাবে প্রকাশ্যে নারী হেনস্তার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বইছে সমালোচনার ঝড়৷ বলরামকে গ্রেপ্তারের পাশাপাশি দল থেকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছেন অনেকে৷

ওই ভিডিওতে দেখা যায়, নীতু তেজওয়ানিকে লাথি মারছেন নারোদার এমপি বলরাম ও তাঁর সঙ্গীরা৷ এক পর্যায়ে নীতুর চুলে হেচকা টান মারেন তিনি৷ অন্য একজন আটকানোর আগ পর্যন্ত লাথি মারতে থাকেন তিনি৷

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানিয়েছে, নীতু ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির (এনসিপি ) সমর্থক৷ নারোদায় পানির সংকট নিয়ে আন্দোলন চালিয়ে আসছে ওই সংগঠন৷ হামলার ঘটনায় বলরামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন নীতু৷

আত্মরক্ষার জন্য ওই কাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে দাবি করেছেন বলরাম৷ ‘‘আমি আমার ভুল স্বীকার করছি৷ তবে এটা ইচ্ছাকৃত ছিল না৷ ২২ বছর ধরে আমি রাজনীতিতে আছি, কখনো এই ধরনের ঘটনা ঘটেনি৷ আমি তার কাছে ক্ষমা চাইছি,” বলরামকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে এএনআই৷

পরে মিষ্টি নিয়ে নীতুর বাড়িতে যান বলরাম এবং তাঁর হাতে রাখি বেঁধে দেন৷

বলরাম কর্তৃক নারী হেনস্থার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে গুজরাট বিজেপিও৷ ‘‘এটি একটি লজ্জাজনক ঘটনা। আমি ওঁর আচরণের নিন্দা করি। একজন জনপ্রতিনিধির কাছ থেকে এমন দুর্ব্যবহার কখনওই কাম্য নয়,” দলের মুখপাত্র ভরত পাণ্ডিয়াকে উদ্ধৃত করে লিখেছে আনন্দবাজার পত্রিকা৷