প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষকদের বেতন ১১তম গ্রেড কেন নয় জানতে চান হাইকোর্ট

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত সহকারী শিক্ষকদের জাতীয় বেতন স্কেল ১১তম গ্রেডে কেন বেতন দেয়া হবে না জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। একই সাথে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ২০১৪ সালের ৯ মার্চ জারি করা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের ১৪তম বেতন নির্ধারণের গ্রেজেট কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

 

 

গতকাল বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ একটি রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে এ রুল জারি করেন।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের।

প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষকদের বেতন ১১তম গ্রেড কেন নয় জানতে চান হাইকোর্ট

গত ৯ মার্চ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের ১৪তম বেতন নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করে। এ প্রজ্ঞাপনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করেন নোয়াখালী সদর উপজেলার মোহাম্মদ সামছুদ্দিন, আলমগীর হোসেন, মো: শহিদ উদ্দিন, মো: আবদুল হামিদ, হাতিয়া উপজেলার মো: ফিরোজ উদ্দিন, লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলার মো: মিজানুর রহমান, মো: ফিরোজ আলমসহ ৩০ জন সহকারী শিক্ষক।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মোহাম্মদ সিদ্দিক উল্লাহ মিয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আবদুল্লাহ আল মামুন।