বাংলাদেশ দখল ক’রে নেওয়ার হুমকি বিজেপি নেতার

বাংলাদেশ দখল ক’রে নেওয়া হবে বললেন সুব্রহ্মন্যম স্বামী। ছবি: ইন্টারনেট।

[su_dropcap size=”4″]র[/su_dropcap]বিবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশের সীমান্তসংলগ্ন রাজ্য ত্রিপুরার আগরতলায় ত্রিপুরা সরকারের সরকারি অতিথিশালায় সংবাদ সম্মেলনে বিজেপি নেতা  সুব্রহ্মন্যম স্বামী বলেন,

‘হিন্দুদের উপরে ক্রমাগত আক্রমণ হচ্ছে বাংলাদেশের মাটিতে। এই প্রবণতা অবিলম্বে বন্ধ না হলে দখল করে নেয়া হবে বাংলাদেশ।’

এর প্রেক্ষিতে সাংবাদিকরা বাংলাদেশের প্রতি ভারতের সমর্থন প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার প্রতি ভারতের সমর্থন রয়েছে। কিন্তু মুসলিমদের হিন্দুদের গায়ের জোরে ধর্মান্তকরণ ও মন্দির ভাঙার তাণ্ডব বন্ধ করতে হবে।’

তিনি অভিযোগ করেন, বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর বিভিন্ন ধারার নিপীড়ন হচ্ছে। বিভিন্ন হিন্দু মন্দির বাংলাদেশে বলপূর্বক দখল করে নেওয়া হচ্ছে এবং বাংলাদেশের দরিদ্র শ্রেণীর সংখ্যালঘুদের উপরে চাপ সৃষ্টি করে তাদের ধর্মান্তরিত করা হচ্ছে।

২০১৪ সালের এপ্রিলে এই বিজেপি নেতা দাবি করেন, দেশ ভাগের পর বাংলাদেশ থেকে এক তৃতীয়াংশ মুসলমান ভারতে অনুপ্রবেশ করেছে৷ তাই তাদের বাংলাদেশে ফিরিয়ে নিতে হবে৷ তা না নিলে খুলনা থেকে সিলেট পর্যন্ত বাংলাদেশের এক তৃতীয়াংশ ভূখণ্ড ভারতের কাছে ছেড়ে দেয়ার দাবি করেন এই নেতা।

শুধু বাংলাদেশ নয়, এদিন পাকিস্তানের সঙ্গেও যুদ্ধ  বাঁধাবোর চেষ্টা করেন ভারতীয় রাজ্যসভার এই প্রবীণ সদস্য। তিনি পাকিস্তানের নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে ‘চাপরাসি’ বলে মন্তব্য করেন। তার মতে, ‘ইমরান বা অন্য কেউ নামেই প্রধানমন্ত্রী। আসলে সবাই সেনাবাহিনী বা আইএসআইয়ের চাপরাসি।’ প্রতিবেশী রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রীকে শুধু চাপরাসি বলেই থেমে থাকেননি তিনি। বললেন, পাকিস্তানকে ভারতীয় সেনাবাহিনীর হাতে ছেড়ে দিতে হবে। আগে তো দুভাগ হয়েছে। এবার চার ভাগ করতে হবে। বালুচি, সিন্ধি, পোকতোনি ও পাকিস্তানকে আলাদা করে দিতে হবে। 

সূত্র: কলকাতাটুয়েন্টিফোর