সেপ্টেম্বরের মধ্যে উন্মুক্ত হবে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি শ্রম বাজার

আবারো দ্বার খুলছে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি শ্রমিক রফতানির। জি-টু-জি বা সরকারি প্রক্রিয়ায় শ্রমিক নেয়া বন্ধ থাকলেও সেপ্টেম্বরের মধ্যে তা চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন মালয়েশিয়ার মানব সম্পদ বিষয়কমন্ত্রী এম. কুলাসেগারান।

আরো পড়ুন: এরশাদের দাফন রংপুরেই, পাশে নিজের কবরের জায়গাও চাইলেন রওশন

এতে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। আর দেশটিতে বাংলাদেশের হাইকমিশন বলছে, কম খরচে মালয়েশিয়ায় শ্রমিক নিতে কাজ করছেন তারা।

অবশেষে বাংলাদেশিদের জন্য মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার উন্মুক্ত হচ্ছে। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই ঢাকা থেকে কুয়ালালামপুরে বৈধপথে শ্রমিক যাবে বলে আশ্বস্ত করেছেন দেশটির মানব সম্পদ বিষয়কমন্ত্রী এম. কুলাসেগারান।

সোমবার (১৫ জুলাই) কুয়ালালামপুরে নবম আন্তর্জাতিক প্ল্যান্টার্স কনফারেন্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের ফাঁকে সংবাদ সম্মেলনের তিনি বলেন, আগস্টে নতুন নিয়মে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

মালয়েশিয়ার মানব সম্পদ বিষয়কমন্ত্রী এম. কুলাসেগারান বলেন, বাংলাদেশি কর্মী নেয়ার কার্যক্রম পুনরায় চালুর বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে আরো এক, দুই মাস সময় লাগবে। বাংলাদেশি শ্রমিক আমদানি বন্ধ থাকায় মালয়েশিয়ায় নির্মাণ, কৃষি ও শিল্পসহ বিভিন্ন খাতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। আগের নিয়মগুলো কাজ করেনি। নতুনভাবে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক আসবে। যা এখন সময়ের ব্যাপার।

২০১৮ সালের পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে জি-টু-জি প্রক্রিয়ায় বাংলাদেশি শ্রমিক নেয়া বন্ধ রেখেছে মালয়েশিয়ায়। এ পদ্ধতিতে সব বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে কর্মী পাঠানোর বিষয়ে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার মধ্যে সিদ্ধান্ত হলেও তা বন্ধ হয়ে যায়। নতুন এ উদ্যোগে খুশি প্রবাসী বাংলাদেশীরা।

আর মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম সময় সংবাদকে বলেন, কম খরচে শ্রমিক মালয়েশিয়ায় আনতে কাজ করছেন তারা। শ্রমিকদের প্রভিডেন্ট ফান্ডের পরিকল্পনাও করা হচ্ছে।

মালয়েশিয়ায় বৈধভাবে ৪ লাখ শ্রমিক বিভিন্ন সেক্টরে কাজ করছেন।