দেশব্যাপী ছে`লেধরা সন্দেহে গ্রেফ`তার ৭০ শতাংশই বিএনপি-জামায়াতের: তথ্যমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে ন্যাপ ভাসানী আয়োজিত এক আলোচনাসভায় ছে`লেধরা গুজব ছড়িয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে হ`ত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে গ্রেফতার ব্যক্তিদের ৭০ শতাংশের বেশি বিএনপি-জামায়াতের কর্মী বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, যখন বাংলাদেশ পৃথিবীকে অবাক করে দিয়ে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করছে, তখন একটি কু`চক্রীমহল প্রচণ্ডভাবে হতাশ।

আরও পড়ুন: নোয়াখালীতে ভুল অপারেশনে প্রসূতি মা ও শিশুর মৃ`ত্যু, দুইজন গ্রে`ফতার

তারা রাজনৈতিকভাবে আমাদের মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়ে ও জনগণের কাছে প্রত্যাখ্যাত হয়ে নানা ধরনের হীন ষ`ড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তারা নানা ধরনের অপ`কৌশলের আশ্রয় নিচ্ছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াত গোষ্ঠী অপ`কৌশলের অংশ হিসেবে রটিয়েছে সরকারি অনুমোদন নিয়ে নাকি পদ্মা সেতুতে শিশু ব`লি দিতে হবে। তাও একটি-দুটি নয়, এক লাখ শিশু। 

এমন একটি গুজব রটিয়ে দেয়া হলো এবং সেই সূত্র ধরেই দেশে ছেলেধ`রা আতঙ্ক তৈরি করা হয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় আতঙ্ক সৃষ্টিকারী কিছু মানুষ আর কিছু দু`ষ্কৃতকারী বিভিন্ন স্থানে নিরীহ মানুষের ওপর হামলা পরিচালনা করেছে। এদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থানে আছে। এদের অনেককেই গ্রে`ফতার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: এডিস মশার প্রজনন ক্ষমতা রোহিঙ্গাদের মতো, যে কারণে নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

হাছান মাহমুদ আরও বলেন, গ্রেফ`তার ব্যক্তিদের ৭০ শতাংশের বেশি হচ্ছে বিএনপি-জামায়াত গোষ্ঠীর মানুষ। রাজনৈতিকভাবে ব্যর্থ হয়ে তারা নানা অ`পকৌশলের আশ্রয় নিচ্ছে।

কাউকে সন্দেহজনক মনে হলে নিজের হাতে আইন তুলে না নিয়ে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।