মূল আ`সামিদের বাদ দিয়ে মিন্নিকে নিয়ে পুলিশের বেশি উৎসাহ কাম্য নয় : পুলিশকে হাইকোর্ট

রোববার বরগুনার চাঞ্চল্যকর রিফাত শরীফ হ`ত্যা মা`মলায় মূল আ`সামিদের বাদ দিয়ে নি`হতের স্ত্রী ও মা`মলার প্রধান সাক্ষী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে নিয়ে পুলিশের বেশি উৎসাহিত হওয়া কাম্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন আদালত।

বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

আরও পড়ুন: হরমুজ প্রণালী অতিক্রম করে যু`দ্ধের উস্কানি দিল দ্বিতীয় ব্রিটিশ যু`দ্ধজাহাজ

একই সঙ্গে পিবিআই বা সিআইডির তদন্তের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করে দেন আদালত।

রিটকারী আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দকে আদালত বলেন, পুলিশের তদন্তে অসন্তুষ্ট হলে মিন্নির পরিবারের কেউ আদালতে আসতে পারেন। স্বাধীন দেশে এটি সবার অধিকার। এ সময় রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

শুনানিতে হাইকোর্ট বলেন, এ মা`মলার আ`সামিদের বিরুদ্ধে আগে থেকেই মা`দক ব্যবসার সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে। এর পরও তারা পুলিশের নজরদারির মধ্যে কীভাবে মা`দক ব্যবসা পরিচালনা করছে। পুলিশ সতর্ক থাকলে হয়তো রিফাতকে এভাবে প্রা`ণ দিতে হতো না। তাই মিন্নির প্রতি উৎসাহী না হয়ে মা`মলার মূল আ`সামিদের দিকে পুলিশের নজর দেয়া উচিত।

আরও পড়ুন: এবার ৮০ লাখ টাকাসহ ডিআইজি প্রিজনস পার্থ গোপাল গ্রে`প্তার

গত ২৫ জুলাই রিফাত হ`ত্যা মা`মলায় পিবিআই বা সিআইডির তদন্তের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করা হয়। মিন্নির পরিবারও পুলিশি তদন্তে অনাস্থা জানিয়ে মা`মলাটি পিবিআই বা সিআইডিতে হস্তান্তরের দাবি জানিয়েছে। তবে তারা এখনও এ নিয়ে আ`দালতের শরণাপন্ন হয়নি।