দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ৩ মাসের জন্য নিষিদ্ধ হলেন মেসি

দক্ষিণ আমেরিকা ফুটবল কনফেডারেশনের (কনমেবল) বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তোলায় আন্তর্জাতিক ম্যাচে তিন মাস নিষিদ্ধ হয়েছেন আর্জেন্টিনার তারকা ফুটবলার লিওনেল মেসি। এই সময়ের মধ্যে আর্জেন্টিনার জাতীয় দলের হয়ে কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে পারবেন না তিনি।

ব্রাজিলে কোপা আমেরিকার সেমি-ফাইনালে স্বাগতিকদের কাছে হারার পর এবং চিলির বিপক্ষে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচের পর রেফারি ও কনমেবলের কঠোর সমালোচনা করেন মেসি।   তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচের পর মেসি বলেছিলেন, ‘ব্রাজিলের জন্য কাপটি নির্দিষ্ট ছিল।’ সে মন্তব্যের জবাবে কনমেবল জানায়, মেসির অভিযোগ ভিত্তিহীন এবং এটি আয়োজকদের সম্মানে আঘাত করেছে। পরে অবশ্য এর জন্য ক্ষমা চান তিনি।

কিন্তু শৃঙ্খলাভঙ্গের কারণ দেখিয়ে নিষেধাজ্ঞা আদেশ জারি করে কনমেবল। নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি মেসিকে ৫০ হাজার ডলার জরিমানাও করা হয়েছে। এই শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল করতে মেসি ও আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনকে সাত দিন সময় দিয়েছে কনমেবল।

গত মাসে চিলির বিপক্ষে কোপা আমেরিকার তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচের প্রথমার্ধে গারি মেদেলের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কিতে ‘বিতর্কিতভাবে’ লাল কার্ড দেখায় এর আগে এক ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছিলেন মেসি। ফলে আগামী বছরের মার্চে কাতার বিশ্বকাপের দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচটি খেলতে পারবেন না তিনি।

তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে আর্জেন্টিনা ২-১ গোলে জেতার পর পদক নিতে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে যাননি মেসি। পরে আয়োজক ও রেফারিরা ব্রাজিলকে শিরোপা জেতাতে ‘দুর্নীতি করেছে’ বলে মন্তব্য করেন তিনি।

কড়া মন্তব্যের জন্য বাড়তি নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়ার আশঙ্কা করছেন কিনা জিজ্ঞেস করা হলে ৩২ বছর বয়সী এই ফুটবলার বলেছিলেন, ‘সত্যিটা বলা প্রয়োজন’। কনমেবল তখন বলেছিল, মেসির মন্তব্যগুলো মেনে নেয়া যায় না।

দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ৩ মাসের জন্য নিষিদ্ধ হলেন মেসি

কনমেবলের নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকলে আগামী তিন মাসে চিলি, মেক্সিকো, জার্মানির সঙ্গে আর্জেন্টিনার প্রীতি ম্যাচ খেলতে পারবেন না মেসি। লস এঞ্জেলেসে আগামী ৫ সেপ্টেম্বর চিলির মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। পাঁচ দিন পর সান আন্তোনিওতে মেক্সিকোর সঙ্গে আরেকটি প্রীতি ম্যাচ খেলবে তারা। আর ডর্টমুন্ডে স্বাগতিক জার্মানির বিপক্ষে ম্যাচটি হবে ৯ অক্টোবর। পার্সটুডে।