চকরিয়ায় ভাঙা খুঁটিতেই চলছে বিদ্যুৎ সঞ্চালন, যেকোন মূহুর্তে ঘটতে পারে দুর্ঘটনা

চকরিয়া উপজেলার অন্তর্গত সাহারবিল ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ ছোট্ট গ্রাম মাইজঘোনা, গ্রামের মাঝখান দিয়ে চলে গেছে উপজেলার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যস্ততম রাস্তা (চকরিয়া-বদরখালী-মহেশখালী) কে বি জালালউদ্দিন সড়ক। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় প্রকল্প মাতারবাড়ি কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্পের সব ধরনের যোগাযোগ ও পন্য পরিবহনের একমাত্র সড়ক ও এটি।

দুঃখের বিষয় এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কের মাইজঘোনা বায়তুর রহমান মসজিদের পাশেই একটি বৈদ্যুতিক খুঁটি দীর্ঘ দিন ধরে ভাঙা। সরেজমিনে দেখা যায় এই খুঁটি থেকে প্রায় ৩০-৩৫ টি বৈদ্যুতিক সংযোগ নিয়েছে এলাকাবাসী। এই খুঁটি ছাড়াও আরো বেশ কিছু বিপদজনক ভাঙা খুঁটি রয়েছে এই সড়কে।

খুঁটির বিপরীত পাশের স্থানীয় দোকানদার কাছেম সওদাগরের সাথে কথা বলে জানা যায় প্রায় ১ মাস আগে ট্রকের ধাক্কায় খুঁটিটি ভেঙে পড়ে,এক সপ্তাহ ব্যবধানে দ্বিতীয় বার আবার ট্রকের ধাক্কায় বর্তমানে খুঁটির অবস্থা খুবই নাজুক, এ পরিস্থিতিতে এলাকাবাসী যে কোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনার আশংকা করছেন। উল্লেখ্য অত্র এলাকায় ওয়াপদার বিদ্যুৎ সঞ্চালন বিদ্যমান।

এ বিষয়ে ওয়াপদার আবাসিক প্রকৌশলী জনাব মঈন উদ্দিনের সাথে মুটোফোনে কথা হলে তিনি জানান, বিষয়টি মাস খানেক আগের হলেও তিনি অবগত আছেন, খুব ধ্রুত নতুন খুটিঁ স্থাপনের মাধ্যমে সমস্যাটি সমাধান করা হবে, তিনি আরো জানান অত্র এলাকায় দীর্ঘ দিনের আরেকটি সমস্যা হচ্ছে লো-ভোল্টেজ, এই সমস্যা সমাধানেও তারা কাজ শুরু করেছেন।