বরুড়ায় মানবিক কাজে এগিয়ে রাজাপুর এইড কমিউনিটি

ফয়সাল রহমান ভুঁইয়া, বরুড়া প্রতিনিধি:: কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার ১নং আগানগর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড রাজাপুর গ্রামে মানবিক, সামাজিক, অরাজনৈতিক ও সেচ্ছাসেবী কাজকে প্রধান্য দিয়ে কিছু উদ্যমী শিক্ষিত যুবকের হাত ধরে সামাজিক দ্বায়বদ্বতা থেকে ২০১৭ সালের প্রথম দিকেই গড়ে উঠে রাজাপুর এইড কমিউনিটি নামে একটি সংগঠন। যা এলাকার সামাজিক সকল উন্নয়নমূলক কাজে সংগঠনের অংশগ্রহণ ও এলাকার মানুষকে ভালো কাজে উৎসাহী করে এলাকার উন্নয়ন ঘটানোই লক্ষ্য হিসেবে কাজ করে।

সংগঠনের প্রায় ৪০ জন সদস্য মিলে এলাকার খারাপ রাস্তা-ঘাট মেরামত, এতিম অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিত গরিব ছাত্রদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ দান, অসহায় পরিবারের বিবাহে সহযোগীতা, সমাজে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা, এলাকার বিভিন্ন মসজিদ ও ঈদগাহে সহযোগীতা, বৃক্ষরোপন, ঈদের আগে গ্রামের দুস্তদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ, প্রচণ্ড শীতে শীতবস্ত্র বিতরণ, স্বেচ্ছায় রক্তদান ও রমজানের গরিব অসহায়দের নিয়ে ইফতার মাহফিল সহ গ্রামের একে অন্যের মাঝে সুসম্পর্ক স্থাপনে তাদের নজীর বরুড়ার মানুষের কাছে অনুসরণীয় ও অনুকরণীয় হিসেবে থাকবে।

বিশেষ করে তাদের যে কাজটি দেখে এলাকাবাসী ও জনমনে সাড়া ফেলছে তা হলো, সংগঠনের সকল সদস্যদের শ্রমে অসহায় পরিবারের মাঝে তারা ইতিমধ্যেই প্রায় ৪টি ঘর যার মূল্য প্রায় আনুমানিক ২লক্ষ টাকা একেবারে নিজস্ব খরচে দিতে সক্ষম হয়েছে।

বিভিন্ন সূত্রে আরো জানা গেছে, রাজাপুর এইড কমিউনিটির উদ্যেগেই রাজাপুরে প্রথম মাদকের বিরুদ্ধে এলাকায় সামাজিক গণসচেতনতা সৃষ্টি হয় এবং এতে এলাকার মানুষ বিভিন্নভাবেই সংগঠনকে সহযোগী করে। যার ফলশ্রুতিতে ওই গ্রাম এখন প্রায় মাদক শূন্য।

এ ব্যাপারে সংগঠনটির আহবায়ক ব্যাংকার মাহবুবুল আলমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এই সংগঠনটি আমরা মানুষের কল্যাণে একেবারেই লিল্লাহ কাজ করছি। মানুষের অনেক বেশী সাড়া পাচ্ছি। এলাকার জনগণের পাশাপাশি উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও আমাদের সংগঠনকে বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে সহযোগীতা করা হচ্ছে এবং উৎসাহ দিচ্ছে।

সংগঠনটি নিয়ে রাজাপুর এইড কমিউনিটির উপদেষ্টা ও রাজাপুর গ্রামের মেম্বার আবুল কালাম বলেন, এই সংগঠনের মাধ্যমেই আমাদের গ্রামের অহংকার সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ের মাননীয় যুগ্ন সচিব বাবু মনিন্দ্র কিশোর মজুমদারের স্বপ্নের আর্দশ গ্রাম করতে পারবো। “দলমত, ব্যাক্তি, ধর্মের উর্ধ্বে সবাই সহযোগীতা করবেন” বলেও উল্লেখ করেন তিনি।