কন্যাসন্তানের জন্মে ক্ষেপে গিয়ে গলা টিপে হত্যা করলেন বাবা

বুধবার সকালে ভারতের মুর্শিদাবাদের আঙ্গারপুর গ্রামের পশ্চিম পাড়ায় তিন মাসের শিশুকন্যাকে গলা টিপে হত্যা করে নদীর ধারে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বাবার বিরুদ্ধে। গ্রামবাসীরা অভিযুক্তকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। মিকুলের দ্বিতীয় স্ত্রী রেহেনা বিবি ভরতপুর থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে মেয়েকে খুনের অভিযোগ জানিয়েছে।

গ্রামবাসী জানিয়েছেন, মিকুল শেখ আঙ্গারপুর গ্রামের পশ্চিম পাড়ায় থাকে। রিকশা চালিয়ে সংসার চালায় সে। প্রথমবার বিয়ের কিছুদিন পরেই হিজলের রানিপুর গ্রামের এক মহিলার সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করে সে। তাকেও বিয়ে করে বাড়িতে নিয়ে আসে ওই যুবক। 

ফাইল ছবি

দুই স্ত্রীকে নিয়ে তার টানাপোড়েন চলছিল। তার মাঝেই আবার মিকুলের দ্বিতীয় স্ত্রী একটি কন্যাসন্তানের জন্ম দেয়। কন্যাসন্তান জন্মের পরই তাদের সাংসারিক অশান্তি বাড়তে থাকে।

মিকুলের দ্বিতীয় স্ত্রী রেহেনা বিবি বলেন, ‘কন্যাসন্তান হওয়ায় আমার স্বামী তিন মাসের মেয়েকে প্রাণে মারার আগেও চেষ্টা করেছিল। কিন্তু সফল হয়নি। বুধবার সকালে যখন গোসল করছিলাম তখন আমার স্বামী ছোট্ট মেয়েকে নিয়ে নদীর ধারে গিয়ে গলা টিপে খুন করে। 

গ্রামের লোকেরাই শিশুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপরই তাকে মৃত বলে জানায় চিকিৎসকরা। আমি স্বামীর শাস্তি চাই।’