৭০ বছর পর কাশ্মীরে নবযুগের সূচনা হয়েছে: জন্মদিনে মোদি

মোদির জন্মদিনেও ওঠে আসল কাশ্মীর প্রসঙ্গ। এদিনে গুজরাটের কেবাড়িয়াতে সর্দার বল্লভ প্যাটেলের মূর্তিসহ আরও কিছু প্রকল্প ঘুরে দেখেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। পরে একটি জনসভায় বলেন, ৭০ দশক ধরে বিচ্ছিন্নতাবাদের সঙ্গে লড়াইয়ের পর উপত্যকায় নবযুগের সূচনা হয়েছে।

নিজ রাজ্যে জন্মদিন কাটাতে সোমবারই গুজরাটে যান মোদি। মঙ্গলবার সকালে সেখান থেকে যান নর্মদা জেলার কেবাড়িয়াতে। সেখানে সর্দার পটেল মূর্তি ঘিরে গড়ে ওঠা প্রকল্পগুলি ঘুরে দেখেন। তার পর যোগ দেন জনসভায়। যাওয়ার পথে বিমান থেকে সর্দার প্যাটেলের মূর্তির একটি ভিডিও তোলেন। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে মোদি লিখেছেন, ‘বিশাল এই স্ট্যাচু অব ইউনিটি দেখুন। মহান সর্দার পটেলকে ভারতের শ্রদ্ধা।’

পরে সেখানে পরিদর্শনের আরও একাধিক ভিডিও পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। জনসভায় গুজরাটের উন্নয়ন প্রসঙ্গে আলোচনার পর কাশ্মীর ইস্যুতেও বক্তব্য রাখেন মোদি।

তিনি বলেন, ‘জম্মু-কাশ্মীরের মানুষকে ৭০ বছর ধরে বিচ্ছিন্নাবাদীদের সঙ্গে যুদ্ধ করতে হয়েছে। তবে এখন একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশ। দশকের পর দশক ধরে চলতে থাকা সমস্যা সমাধানের সুযোগ তৈরি হয়েছে। কাশ্মীর, লাদাখের মানুষের সহযোগিতায় জম্মু-কাশ্মীরে এক নতুন যুগের সূচনা হবে।’

বিশ্বের বৃহত্তম সর্দার পটেল মূর্তি উন্মোচনের পর থেকেই এলাকায় পর্যটকদের আনাগোনা ব্যাপক হারে বেড়েছে দাবি করেন মোদি। তিনি বলেন, ‘মাত্র ১১ মাসে ২৩ লাখ পর্যটক স্ট্যাচু অব ইউনিট দেখতে এসেছেন। এখানে গড়ে সাড়ে আট হাজার পর্যটক এখানে আসেন প্রতিদিন।’

তার দাবি, ১৩৫ বছরের আমেরিকার স্ট্যাচু অব লিবার্টি দেখতে যেথানে প্রতিদিন ১০ হাজার পর্যটক আসে, সেখানে মাত্র ১১ মাসে স্ট্যাচু অব ইউনিটিতে এত সংখ্যক পর্যটকের আগমন এক নতুন দিগন্ত খুলে দিয়েছে। স্থানীয় যুবকদের রোজগারের সুযোগ মিলছে।