আবরারকে পিটিয়ে হত্যা: এমপি পুত্র ফারাজ করিমের প্রতিবাদ এবং আবেগঘন স্ট্যাটাস

সোমবার বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আবরার ফাহাদকে গভীর রাতে বুয়েট হলে নৃশংসভাবে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা প্রসঙ্গে এক ফেসবুক পোস্টে রাওজানের এম পি ফজলে করিম এর ছেলে ফারাজ করিমের লেখেন- আবরার ফাহাদকে রুম থেকে ডেকে নেওয়ার আগে সে অংক করছিল। সরেজমিনে বুয়েটর শেরে বাংলা আবাসিক হলে গিয়ে আবরারের ১০১১ নম্বর রুমে তার পড়ার টেবিলে অংক খাতাটি উন্মুক্ত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

আবরার ফাহাদ। ছবি: সংগৃহীত

বুয়েট ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আশিকুল ইসলাম বিটু চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেছেন: ‘আবরারকে শিবিরকর্মী সন্দেহে রাত ৮টার দিকে হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে আনা হয়। সেখানে আমরা তার মোবাইল ফোনে ফেসবুক ও মেসেঞ্জার চেক করি। ফেসবুকে বিতর্কিত কিছু পেইজে তার লাইক দেয়ার প্রমাণ পাই। সে কয়েকজনের সঙ্গে যোগাযোগও করেছে। সেখান থেকে তার শিবির সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাই আমরা।’

আশিকুল ইসলাম বিটুর কাছে প্রশ্ন রাখছি। আপনি কি আদালত ? আপনি কি প্রশাসন ? আপনাকে কে অধিকার দিয়েছে দেশের একজন নাগরিকের মোবাইল তার অনুমতি ছাড়া চেক করা ? আবরার বেআইনি কিছু বলে থাকলে বা করে থাকলে প্রশাসনের হাতে তুলে দিতে পারলেন না ? সে শিবির করে বলে আপনারা তাকে পিটিয়ে মেরে ফেলবেন ? পাপ ছারে না বাপ কে এগুলা ঘুরে একদিন আসবে। আপনার উপর না আসলেও আপনার কারণে আপনার নির্দোষ সহকর্মীর উপর আসবে।

ফারাজ করিম। ছবি: সংগৃহীত

ছাত্র লীগ দেখতে চান ? রাউজান আসেন। চট্টগ্রাম আসেন। যেয়ে দেখেন ছাত্র লীগ নেতৃবৃন্দ কিভাবে পলির জন্য প্রশাসনের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলছে।তারাই বঙ্গবন্ধুর ছাত্র লীগ।আর আপনারা ক্যান্সার লীগ।

প্রশাসনের কাছে অনুরোধ, আপনারা চাইলে সব পারেন। এই বিচার দেশের ভবিষ্যতের জন্য একটি ঐতিহাসিক বিচার হবে যদি সঠিক ভাবে হয়। আর বিচার যদি না হয় তাহলে খুনের রাজনীতি আমাদের দেশে কখনো বন্ধ হবেনা।

এম পি ফজলে করিম এবং ছেলে ফারাজ করিম। ছবি: সংগৃহীত

দোষ যে করেছে পাপ তার। বঙ্গবন্ধুর ছাত্র লীগের ভাইয়েরা আমার, এই বিচারবিহীন হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলুন। এই মানুষ গুলো আমাদের দল কে, দেশকে, নেত্রীকে সকলকে বিতর্কিত করার চেষ্টায় লিপ্ত। কোনো তদবির না শুনে দোষীদের বিচারের জন্য প্রশাসনকে সহায়তা করুন।

আজ আমার জাগায় অন্য কেউ প্রতিবাদ করলে তাকেও নিশ্চই উঠিয়ে নিয়ে যেতেন। নাকি আমাকেও নিয়ে যাবেন ? আপত্তি নেই। মনেরাখবেন, আপনার অস্ত্রের থেকে আমার কলমের ধার বেশি।

জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু।