বিএনপির নেতাদের কেউ কেউ এত পয়সা বানিয়েছে, গায়ে রোদ লাগাতে চায় না: মেজর হাফিজ

বুধবার বিকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, ‘দলের কর্মীরা অনেক সাহসী, কিন্তু নেতারা দুর্বল। নেতাদের কেউ কেউ এত পয়সা বানিয়েছে যে, রাজপথে তাদের গায়ে রোদ লাগাতে ইচ্ছে করে না। 

আমরা তো টাকা-পয়সা বানাই নাই। ৬ বার এমপি হয়েছি আমার তো বাড়ি নেই, বাবার দেয়া বাড়িতে থাকি। আমার বিরুদ্ধে তো কোনো দুর্নীতির মামলা নেই।’

বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রসঙ্গ টেনে হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আবরারের মতো একটা ছেলে জীবন দিল কীভাবে? কী নৃশংসভাবে তাকে মেরেছে। যে ছেলেগুলো মেরেছে তারাও তো মেধাবী। 

যারা গ্রেফতার হয়েছে এরা খুনি হল কীভাবে? এদের খুনি বানিয়েছে আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যু্বলীগ। আমরা এদের প্রতিরোধ করতে চাই। ঐক্যবদ্ধ হোন আপনারা।

বাংলাদেশ থেকে আর কী কী নেয়ার আছে সে বিষয়ে ভারতের একটি কমিশন গঠন করা বাকি আছে মন্তব্য করে হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, এখন ভারতের কমিশন বসাতে হবে। এখান থেকে নেয়ার মতো আর কী আছে? নদীর মাছ ও সাগরের মাছ তারা ধরে নিয়ে যায়। সুন্দরবন ছিল, তা পুড়ে যাচ্ছে। 

তিতাস নদী বন্ধ করে তাদের গাড়ি-ঘোড়া চলবে। সবকিছুই তারা নিয়ে নিচ্ছে। এই সরকার ভারতের পদলেহি একটা সরকার। আমরা সাহসী সরকার চাই, মধ্যরাতের সরকার আমরা চাই না।

সরকারের সমালোচনা করে তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, এই সরকার অত্যন্ত দুর্বল সরকার। আপনারা মাঠে নামেন, ইনশাআল্লাহ সরকার বিদায় হয়ে যাবে।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আপনি অনেক বড় মাপের এক নেতার কন্যা। কত সম্মান আপনার জন্য। দেশটাকে আর ধ্বংস করবেন না। আপনি দেশকে ভারতের কোনো করতরাজ্য হতে দিবেন না। আপনার বাবাও দেয়নি, আপনিও দিবেন না। 

আমি বলব, আপনি তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠা করে পদত্যাগ করেন। জাতীয় সংসদ ভেঙে দেন। সব দলের অংশগ্রহণে ফেয়ার একটা নির্বাচনের সুযোগ দেন। বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে আর হত্যা করবেন না।