পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সৌদি সফর: উদ্দেশ্য ইরান ও সৌদির মধ্যকার উত্তেজনা কমানো

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি গতকাল (বুধবার) সৌদি আরব সফরে গিয়ে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান বিন আব্দুল্লাহর সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

পাকিস্তানের প্রভাবশালী ইংরেজি ‘দৈনিক এক্সপ্রেস ট্রিবিউন’ জানিয়েছে, পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলে বিশেষ করে সৌদি আরব এবং ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের মধ্যে যে উত্তেজনা চলছে তা কমানোর লক্ষ্য নিয়ে তিনি এ সফর করেছেন। 

পত্রিকাটি বলছে, পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থার প্রধানও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন। এ থেকে বোঝা যাচ্ছে সফরের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে।

পাক পররাষ্ট্র দপ্তর এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান বিন আব্দুল্লাহ সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক, ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি এবং আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা করা হয়।

এ বৈঠকে কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে কোরেশি সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে জানান, গত চার মাস ধরে ভারতের নিরাপত্তা বাহিনী জম্মু এবং কাশ্মীরকে অচল করে রেখেছে। তিনি জানিয়েছেন, প্রায় ৮০ লাখ কাশ্মিরী জনগণ বাইরের জগতের সঙ্গে প্রায় সম্পূর্ণভাবে বিচ্ছিন্ন রয়েছেন।

ইরান এবং সৌদি আরবের ভেতরে আঞ্চলিক বিভিন্ন ইস্যুতে গত কয়েক বছর ধরে চরম মতভেদ রয়েছে। তবে সৌদি আরবের আরামকো তেল স্থাপনায় ইয়েমেনের হুথিদের হামলার পর তেহরানকে দোষারোপ করলে দু দেশের মধ্যে উত্তেজনা তীব্র আকার ধারণ করে। সৌদি আরবের ওই অভিযোগ ইরান জোরালোভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে