কাউকে বাংলা ছাড়তে হবে না, কাউকে দেশ ছাড়তে দেবো না: মমতা

আজ (শুক্রবার) নৈহাটি উৎসবের উদ্বোধনে এসে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘কাউকে বাংলা ছাড়তে হবে না, কাউকে দেশ ছাড়তে দেবো না। আমাদের আন্দোলন চলছে, চলবে। মানুষের আন্দোলনের জয় হবে।’ 

মমতা আজ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ), জাতীয়  নাগরিকপঞ্জি(এনআরসি) ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র সমালোচনায় সোচ্চার হন। মমতা বলেন, ‘আমরা হিন্দু-মুসলিম-শিখ-ঈশায়ী সবাই এক সাথে থাকব, ভালোভাবে থাকব। শান্তিতে থাকব। এই পৃথিবীতে থাকব। কাউকে বাংলা ছাড়তে হবে না, কাউকে দেশ ছাড়তে দেবো না।’

তিনি বলেন, ‘আপনারা ভয় পাবেন না, চিন্তা করবেন না, একদম ঠিকঠাক থাকবেন, সুস্থ থাকবেন সুন্দর থাকবেন। আপনাদের চিন্তাটা আমার মাথায় দিয়ে দিন। আপনাদের চিন্তাটা আমি দেখে নেবো। অত ভাবার কনো কারণ নেই। শান্তিতে পড়াশোনা করুন, কাজকর্ম করুন, সংসার চালান। বাদবাকিটা আমার ওপরে ছেড়ে দিন।’

মমতা কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘আমরা ‘দিল্লি কা লাড্ডু’র কথায় বাংলায় পথ চলি না। আমরা সবাইকে নিয়ে চলি। একসাথে চলি, এক সাথে চলব। আজকে হুঁশিয়ারি দিচ্ছে আমার ছাত্র-ছাত্রী বন্ধুদের! ১৮ বছরে সে ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত করবে আর আন্দোলনে অংশগ্রহণ করতে পারবে না, কী অবস্থা! প্রতিদিন ছাত্রদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে! অনেক জায়গা থেকে শিক্ষার্থীদের তাড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে! তাঁরা গণতান্ত্রিক অধিকার আন্দোলনের সঙ্গে আছে বলে তাদের নিষ্পেষণ করা হচ্ছে! এসব চলবে না।’

মমতা বিজেপিকে টার্গেট করে বলেন, ‘১৯৪৭ সালে যখন দেশ স্বাধীন হল তখন ওরা কোথায় ছিল? ভূমিষ্ঠই হয়নি। ১৯৮০ সালে জন্মে তাদের কাছ থেকে আমায় দেশের কথা শুনতে হবে? ১৯৮০ সালে জন্মগ্রহণ করার পরে দলটা (বিজেপি) এখন বলছে দেশ থেকে সব ভাগো! সবাইকে দেশ থেকে তাড়িয়ে দেবে? আর শুধু নিজেরা থাকবে? সবাই দেশ থেকে ভাগো, শুধু বিজেপির মাদুলি পরে ঘুরে বেড়াও। নাগরিকত্ব প্রমাণে আধার কার্ড চলবে না, প্যান কার্ড চলবে না, ভোটার তালিকা চলবে না। তাহলে কী কেবল ‘বিজেপির মাদুলি’ চলবে?’

মমতা বলেন, ‘ওরা বলে বেড়াচ্ছে ‘ডিটেনশন ক্যাম্প’ করবে! কিন্তু এখানে ক্ষমতায় কারা আছে? আমরা আছি। আমি আমার জীবন দিতে তৈরী আছি। কিন্তু ডিটেনশন ক্যাম্প বিজেপিকে করতে দেবো না। এটা মাথায় রাখবেন। সরকারে আমরা আছি। রাজ্য সরকার এগুলো করে। অসমে ডিটেনশন ক্যাম্প করতে পেরেছে কেন? সেখানে বিজেপির সরকার আছে বলে। ওরা দিল্লিতে আছে। ওরা নির্বাচিত সরকার। আমরাও নির্বাচিত সরকার। তোমার অধিকার দিল্লিতে। আমার অধিকার এখানে। এটা মাথায় রাখতে হবে। আমাকে আইন বেশি দেখিয়ে লাভ নেই। আমি মানুষের আশীর্বাদে সাত বার সংসদের সদস্য হয়েছি। দিল্লতে পাঁচ/ছ’টা মন্ত্রণালয় সামলে এসেছি। আইন ও সংবিধান ভালো বুঝি।’ জনগণ বিপদে পড়ে এমন কোনও কাজ আমরা করব না বলেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ  সাফ জানিয়ে দেন।