আমেরিকা ও তুরস্কের হাত থেকে তেল ক্ষেত্রগুলো উদ্ধার করা হবে: সিরিয়া

লেবাননের আল-মায়াদিন নিউজ চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের সিনিয়র উপদেষ্টা বাসিনা শাবান জানিয়েছে, আমেরিকা ও তুরস্কসহ যেকোনো আগ্রাসী বাহিনীর হাত থেকে নিজের তেল ক্ষেত্রগুলো উদ্ধার করবে সিরিয়া।

তিনি বলেন, আমেরিকা সব সময় বিশ্বের দেশগুলোর সম্পদ লুণ্ঠন করে এসেছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রকাশ্যে নির্লজ্জের মতো ঘোষণা করেন, তিনি ইরাক ও সিরিয়ার তেল চান। এই ঘোষণা দিতে গিয়ে তিনি আন্তর্জাতিক আইন বা এসব দেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি ন্যুনতম ভ্রুক্ষেপ করার প্রয়োজন মনে করেন না বলে শাবান উল্লেখ করেন।

আমেরিকা সিরিয়ার সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করে সেদেশের তেল লুট করছে বলে জানান বাশার আল-আসাদের এই উপদেষ্টা। তিনি বলেন, আমেরিকার এই দস্যুবৃত্তির বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অভিযোগ জানানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে দামেস্ক।

বাসিনা শাবান বলেন, আমেরিকা অন্য দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের অজুহাত হিসেবে মানবাধিকারকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে। বিশ্বের দেশগুলো এখন আমেরিকার রাজনৈতিক, সামরিক ও অর্থনৈতিক আধিপত্য থেকে মুক্তি পাওয়ার চেষ্টা করছে বলে তিনি জানান।

জাতিসংঘের অনুমোদন বা সিরিয়ার অনুমতি ছাড়াই দেশটির উত্তরাঞ্চলে সেনা মোতায়েন করে রেখেছে আমেরিকা। এ ছাড়া, কুর্দি বিদ্রোহীদের দমন করার অজুহাতে একই এলাকায় সামরিক অভিযান চালিয়ে সেনা মোতায়েন করেছে তুরস্ক। ওই দু’টি দেশের নিয়ন্ত্রণে থাকা এলাকাগুলোতে সিরিয়ার অনেকগুলো তেলের খনি রয়েছে। পার্সটুডে।