রাঙামাটিতে সুর নিকেতন ও বিগএইচ মিউজিক স্কুলের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা

রাঙামাটি প্রতিনিধি: ”সঙ্গীতের মূর্চ্ছনায় আলোকিত হোক আগামী প্রজন্ম” – এই স্লোগানকে সামনে রেখে গত ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯ শনিবার রাঙামাটিতে সুর নিকেতন সঙ্গীত শিক্ষালয় ও ব্যান্ড সঙ্গীত প্রশিক্ষণের অন্যতম প্রতিষ্ঠান ‘বিগএইচ মিউজিক স্কুল’ এর যৌথ উদ্যোগে একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়।

নগরীর বাহাদুর পাড়াস্থ সুর নিকেতন ভবনে এ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন ইউটিউব সেলিব্রেটি খ্যাত হাসান এস. ইকবাল ও দৃষ্টি আনাম। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ঘুড্ডি ব্যান্ডের কর্ণধার, সুরকার ও কম্পোজার এবং কালারস এফ.এম এর সাউন্ড ইন্জিনিয়ার শরীফ সুমন, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর প্রাক্তন সঙ্গীত শিক্ষক ও সুর নিকেতন সঙ্গীত শিক্ষালয়ের সম্মানিত পরিচালক শ্রদ্ধেয় মনোজ বাহাদুর গুর্খা ও বিগএইচ মিউজিক স্কুলের পরিচালক হিমাদ্রী বাহাদুর গুর্খা।

আরো উপস্থিত ছিলেন সুর নিকেতন ও বিগএইচ মিউজিক স্কুলের গুণী শিক্ষার্থীরা। উক্ত অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিগ এইচ মিউজিক স্কুলের শিক্ষার্থী প্রিতম নাগ। অনুষ্ঠানের শুরুতেই অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ করেন শিক্ষার্থীরা।

সঙ্গীত শিল্পী দৃষ্টি আনাম বলেন, আমাদের জন্য রাঙামাটির মানুষের এমন আন্তরিকতা ও ভালোবাসা দেখে সত্যিই অনেক আনন্দিত ও মুগ্ধ হয়েছি।”

তিনি আরো বলেন, ”শ্রদ্ধেয় মনোজ বাহাদুর স্যারের পরিচালিত সঙ্গীত শিক্ষালয় সুর নিকেতন এর কার্যক্রম সত্যিই প্রশংসনীয়। পার্বত্যাঞ্চলে শুদ্ধ শাস্ত্রীয় সঙ্গীত চর্চায় এক অনন্য অবদান রেখে চলেছে এই শিক্ষালয়।বর্তমানে আধুনিকতার ছোয়ায় শাস্ত্রীয় সঙ্গীত প্রায় হারিয়ে যাচ্ছে।সেক্ষেত্রে সুর নিকেতনের এমন ব্যাতিক্রমধর্মী উদ্যেগের প্রতি সাধুবাদ জানাচ্ছি।”

তিনি আগামীতে পার্বত্যাঞ্চলে শুদ্ধ শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য সুর নিকেতন বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে প্রত্যাশা ব্যাক্ত করেন।

এছাড়া সঙ্গীত শিল্পী হাসান এস. ইকবাল রাঙামাটিতে ব্যান্ড সংগীতের প্রসারে ‘বিএইচ মিউজিক স্কুল ‘ এর কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করে আরো বলেন, ‘ ‘বিগ এইচ মিউজিক স্কুল ‘এর হাত ধরে আগামীতে বেরিয়ে আসবে অনেক দক্ষ শিল্পী,যন্ত্র শিল্পী ও অন্যান্য কলাকুশলীবৃন্দ যারা পার্বত্যাঞ্চলের সংগীত জগতকে আরো সমৃদ্ধশালী করবে।”

বিগএইচ মিউজিক স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক হিমাদ্রী বাহাদুর গুর্খা বলেন “আমাদের প্রতিষ্ঠান পার্বত্যাঞ্চলে পাশ্চ্যাত্য সঙ্গীত চর্চাকে আরও একধাপ এগিয়ে নেওয়ার জন্য নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।”

পার্বত্যাঞ্চলে পাশ্চাত্য সঙ্গীত শিক্ষার ধারা অব্যাহত রাখার জন্য “বিগ এইচ মিউজিক স্কুল” এক অনন্য ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করেন। সবশেষে অনুষ্ঠানে হাসান ও দৃষ্টি আনাম সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে সকল দর্শকদের মুগ্ধ করেন।