ঐক্যফ্রন্টের মিছিলে পুলিশের বাধা, সোমবার আবারও বিক্ষোভের ডাক

একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট ডাকাতির অভিযোগ এনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। রোববার বিকাল সাড়ে ৩টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ সমাবেশ করে তারা।

বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে বিকাল পৌনে ৫টার দিকে জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রবের নেতৃত্বে প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে বের হন ঐক্যফ্রন্ট নেতারা। প্রেস ক্লাবের মোড়ে গেলেই পুলিশ তাদের বাধা দেয়। সেখানে নেতাকর্মীরা এ সরকারের পদত্যাগের দাবি জানিয়ে স্লোগান দেন।

বাধা পেয়ে প্রেস ক্লাবের ভেতরে এসে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে আ স ম রব বলেন, ‘আমরা কেমন দেশে বসবাস করছি, সেটা আপনারা সবাই দেখছেন। একটা বিক্ষোভ মিছিল করতে চেয়েছিলাম কিন্তু পুলিশ বাধা দিয়েছে। আজকে এ দেশে কেউ স্বাধীন নয়। বাইকে সরকার বন্দি করে রাখতে চায়। কিন্তু আমরা এটা হতে দেব না। আমরা আমাদের আন্দোলন অব্যাহত রাখব। ৩০ ডিসেম্বর (সোমবার) মৎস্য ভবনের সামনে নাগরিক ঐক্যের উদ্যোগে আমরা বিক্ষোভ সমাবেশ করব।’

এর আগে সমাবেশে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতারা বলেছেন, একাদশ জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ভোটডাকাতি করে ‘রাষ্ট্রদ্রোহী’ কাজ করেছে। এটা সংবিধান বিরোধী কাজ। এই চুরির মাধ্যমে তারা মানুষের ভোটের অধিকার হরণ করে নিয়েছে। এই ডাকাতদের রাষ্ট্রক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করে ভোটের অধিকার ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে হবে। কায়েম করতে হবে জনগণের সরকার। তাই আসুন সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে এই ভোটডাকাতদের বাংলার মাটি থেকে বিদায় করি।