বাংলাদেশ-ভারত ফাইনালে হাতাহাতি: ৫ ক্রিকেটার নিষিদ্ধ

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ফাইনাল শেষে মাঠে হাতাহাতির জেরে পাঁচ ক্রিকেটারকে শাস্তি দিল আইসিসি। ঘটনার ভিডিও ফুটেজ দেখে বাংলাদেশের তিন এবং ভারতের দুই ক্রিকেটারকে শাস্তি দিয়েছে তারা।

যুব ক্রিকেট বিশ্বমঞ্চের ফাইনালি লড়াই শেষে জেন্টলম্যানস গেমে কালির দাগ লেগেছে। বিষয়টি একেবারেই ভালোভাবে নেয়নি আইসিসি। 

গত রোববার পচেফস্ট্রমে যুব বিশ্বকাপের শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচ শেষ হতেই বিতর্কের সূত্রপাত ঘটে। খেলা শেষ হলে মাঠেই বাদানুবাদ থেকে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন ভারত-বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।

আম্পায়ারদের সামনেই এ ঘটনা ঘটে। পুরো বিষয়টি আইসিসির স্ক্যানারে ছিল। এ কাণ্ডকে অত্যন্ত ন্যক্কারজনক বলে চিহ্নিত করেন ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক প্রিয়ম গর্গ।

তবে আবেগের অজুহাত দেখিয়ে গোটা ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়ে নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক আকবর আলী। কিন্তু তাতেও কোনো লাভ হয়নি।

ভিডিও ফুটেজ দেখে গোটা ঘটনার তদন্ত করেছে আইসিসি। বিশ্ব ক্রিকেটের নীতিনির্ধারণী সংস্থা জানিয়েছে, কোড অব কনডাক্ট অর্থাৎ বিধি ভঙ্গ করার অপরাধে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের তৌহিদ হৃদয়, শামীম হোসেন ও রাকিবুল হাসান এবং ভারতের আকাশ সিং ও রবি বিষ্ণোইকে ৪ থেকে ১০টি ম্যাচ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। 

আগামী দিনে অনূর্ধ্ব-১৯ কিংবা এ দলের হয়ে ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তাদের এ শাস্তি বহাল থাকবে।

উল্লেখ্য, ফাইনালে ডাকওয়ার্থ লুইস নিয়মে ভারতকে ৩ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ। প্রথমবার বিশ্বকাপ জিতে নেন টাইগার যুবারা।

তথ্যসূত্র: জি নিউজ।