ঝিনাইদহে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যা

ঝিনাইদহে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ১৬ ফেব্রুয়ারি রাতে ঝিনাইদহ শহরের নতুন হাটখোলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ওই গৃহবধূকে প্রথমে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউট-এ অবস্থায় ভর্তি করা হয়। সেখানে শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় ভিকটিমের মা মামলা দায়ের করলে ভিকটিমের স্বামী সোহরাব হোসেন সৌরভকে আটক করে পুলিশ

নিহত ওই গৃহবধূর নাম মুন্নি আকতার ওরফে পিংকি। তিনি ঝিনাইদহ শহরের নতুন হাটখোলার বাসিন্দা কাজল বেগমের মেয়ে। তবে তার বাবার নাম জানা যায়নি। পিংকির স্বামী সৌরভ শহরের আদর্শপাড়ার আব্দুস সাত্তারের ছেলে।

ঝিনাইদহ সদর থানার পরিদর্শক এমদাদুল হক অভিযোগের বরাত দিয়ে জানান, সৌরভ দীর্ঘদিন যাবত পিংকিকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করে আসছিল। গত ৯ সেপ্টেম্বর ধর্ষণের শিকার হলে পিংকি ঝিনাইদহ সদর থানায় মামলা করে। পরে পুলিশ সৌরভকে গ্রেফতার করে। সে জেল হাজাতে ছিল। পরে মীমাংসার মাধ্যমে তাদের বিয়ে হয়।

গত ১৬ ফেব্রুয়ারি সৌরভ পিংকির বাড়ি এসে তার কাছে দুই হাজার টাকা চায়। টাকা দিতে অস্বীকার করায় পিংকিকে মারপিট করে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় সৌরভ। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এদিকে মা কাজল বেগম জানিয়েছেন, পিংকি তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল।

সূত্র – ইত্তেফাক।