৭ মাস পরে মুক্তি পেলেন জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আব্দুল্লাহ

জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও ন্যাশনাল কনফারেন্সের প্রধান ডা. ফারুক আব্দুল্লাহ এমপি অবশেষে দীর্ঘ ৭ মাস পরে মুক্তি পেয়েছেন। আজ (শুক্রবার) জম্মু-কাশ্মীরের স্বরাষ্ট্র দফতর থেকে এসংক্রান্ত নির্দেশিকা জারি করা হয়।

এ সম্পর্কে ডা. ফারুক আব্দুল্লাহ বলেন, ‘আজ আমি মুক্ত। আমার বলার মতো কোন শব্দ নেই। এই মুহুর্তে, সমস্ত সাথী মুক্তি না পাওয়া পর্যন্ত আমি কোনও রাজনৈতিক ইস্যুতে কথা বলব না।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘আমি রাজ্যবাসী এবং দেশের  সকল নেতাদের যারা আমাদের মুক্তির জন্য আওয়াজ তুলেছেন  তাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। এই স্বাধীনতা তখনই পূর্ণ হবে যখন সমস্ত নেতাকে মুক্তি দেওয়া হবে। আমি আশা করছি ভারত সরকার সকলকে মুক্তি দেওয়ার পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।’

জম্মু কাশ্মীরের তিনবার মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন ডা. ফারুক আবদুল্লাহ। ন্যাশনাল কনফারেন্স দল থেকে তিনি পাঁচবার এমপি  হয়েছেন। বর্তমানে তিনি সংসদের নিম্নকক্ষ লোকসভার সদস্য। গত ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদাসম্পন্ন ৩৭০ ধারা বাতিলের পরে তাকে বন্দি করা হয়। কেন্দ্রীয় সরকার ফারুক আবদুল্লাহর উপরে জন নিরাপত্তা আইন প্রয়োগ করে। ওই আইনে বিনা বিচারে কাউকে দু’বছর পর্যন্ত  আটকে রাখা যায়।

জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের পক্ষ থেকে আজ ডা. ফারুক আব্দুল্লাহকে মুক্তি দেওয়ার কথা জানানো হলেও রাজ্যটির সাবেক দু’জন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লাহ এবং মেহবুবা মুফতিকে নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত প্রকাশ্যে আসেনি। তারাও বিগত ৭ মাস ধরে আটক রয়েছেন।