করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে মোদির প্রস্তাবে হাসিনার সম্মতি

শুক্রবার (১৩ মার্চ) পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন জানান, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য সার্কভুক্ত দেশগুলোকে একটি শক্ত কৌশল গ্রহণের প্রস্তাব দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আর মোদির এ প্রস্তাবে সম্মত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী (শেখ হাসিনা) ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রস্তাবকে একটি ভালো প্রস্তাব হিসেবে অভিহিত করেছেন এবং কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে একটি শক্ত কৌশল গ্রহণ করতে সার্কভুক্ত দেশগুলোর প্রধানদের সঙ্গে ভিডিও করফারেন্সে যোগদানে সম্মতি দিয়েছেন।’

এক টুইট বার্তায় করোনাভাইরাসের বিপক্ষে লড়াই করতে সার্কভুক্ত দেশগুলোর নেতৃবৃন্দকে একটি কৌশল গ্রহণের প্রস্তাব দেন মোদি। টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ‘আমাদের নাগরিকদের সুস্থ রাখার উপায় বের করতে আমরা ভিডিও করফারেন্সের মাধ্যমে আলোচনা করতে পারি।’

টুইটের কয়েক ঘণ্টা পরই ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলি দাস ভিডিও করফারেন্স সম্পর্কে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাসায় যান।

মোমেন বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে বার্তা পৌঁছে দিয়েছি। তিনি (শেখ হাসিনা) আমাকে বলেছেন, দক্ষিণ এশিয়ার সব দেশের নেতারা যদি অংশ নেন, তবে তিনি ভিডিও করফারেন্সে যোগ দিতে রাজি আছেন।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ভারতীয় হাই কমিশন আফগানিস্তান ও পাকিস্তানসহ সার্কভুক্ত দেশসমূহের নেতৃবৃন্দ ভিডিও করফারেন্স বিষয়ে তাদের ইতিবাচক মনোভাব প্রকাশের বিষয়টি নিশ্চিত করলে আমাদের প্রধানমন্ত্রী এতে যোগ দিতে সম্মতি জানিয়েছেন।’

ভিডিও কনফারেন্সটি কখন অনুষ্ঠিত হবে? এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘তারিখ ও সময় এখনো চূড়ান্ত হয়নি। তবে এটা খুব শিগগিরই হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ভিডিও কনফারেন্সে শেখ হাসিনার আলোচনার বিষয় প্রস্তুত করতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যেই কাজ শুরু করেছে।’