বরুড়ার ঝলমে মাহফিলে “মানুষ মানুষের জন্য সংগঠন” কর্তৃক শিক্ষা সামগ্রী ও গুণীজন সম্মাননা প্রদান

ফয়সাল রহমান ভুঁইয়াঃ

গতকাল ১৪ই মার্চ কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার ঝলম ইউনিয়নে ঝলম পূর্বপাড়া বাইতুল আমান জামে মসজিদের উদ্যোগে বার্ষিক ওয়াজ ও দোয়া মাহফিল আয়োজনের পাশাপাশি ঝলম ইউনিয়নের সামাজিক সকল বিষয়ের কথা চিন্তা করে গড়ে উঠা সংগঠন মানুষ মানুষের জন্য সংগঠনের পক্ষ থেকে ইসলামী সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা,পুরষ্কার বিতরণ ও গুনীজন সম্মাননা স্ম
স্বারক প্রদানের মত ভিন্নধর্মী আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত আয়োজনে বাদ আসরের পর ইসলামী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়ে মাগরিব পর্যন্ত তা চলে। পরে বাদ মাগরিব মাহফিলের বয়ান শুরু করে মধ্য রাত অবধি এলাকার মানুষকে দ্বীনি ইসলামী বিভিন্ন কর্মপরিকল্পনা তোলে ধরেন বক্তারা।

ওয়াজ মাহফিলের শেষ ভাগে প্রধান অতিথি চট্টগ্রামের পীর সাহেব আলহাজ্ব মোঃ জাহেদ হোসাইন খাঁনে হাতে ইসলামী সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরণ ও ৩৫ বছরের শিক্ষকতা জীবনের বয়োজ্যেষ্ঠ মাস্টার আব্দুল কাদেরকে গুনীজন সম্মাননা স্মারক তোলে দেন।এসময় উপস্থিত ছিলেন মানুষ মানুষের জন্য সংগঠনের উপদেষ্টা মোঃ আমিনুল ইসলাম,মোঃ শফিকুল ইসলাম,সভাপতি মোঃ আজহার সুমন,প্রচার সম্পাদক ফাহিম,নির্বাহী সদস্য মোঃ মোশাররফ,জালাল,মাসুদ, সোহেল, আক্তার,তিতাস,রাসেল,আনিস,রাজন,শাহীন, উনার ছেলে জাহাঙ্গীর,মহসীন, ইউসুফ।এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন রুহুল আমিন মেম্বার,সমাজ প্রধান মোঃ মন্তাজ উদ্দিন, হাফেজ আঃ রব,মো: ফরিদ উদ্দিন,আবুল কাশেম ও মাহফিল এন্তেজামিয়া কমিটি ও গুণীজন সম্মাননা স্বারক প্রাপ্ত আব্দুল কাদের সাহেবের পরিবারবর্গ।

গুনীজন সম্মাননা স্মারক পাওয়া আব্দুল কাদের মাষ্টার ১৯৬৪ সালে রাজাপাড়া মাদরাসা থেকে শিক্ষকতা জীবন শুরু করে ১৯৯৯ সালে ঢেউয়াতলী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসে প্রায় ৩৫ বছরের শিক্ষকতা জীবনের অবসরে যান।
প্রসঙ্গত, মানুষ মানুষের জন্য সংগঠন প্রতি বছর ঝলম গ্রামের ২ সমাজের ২ টি মাহফিলে ইসলামী সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতার মাধ্যমে ৪৩ জন শিক্ষার্থীর শিক্ষাসামগ্রী বিতরণ করে থাকেন এবং এ বছর থেকে এলাকার বিভিন্ন বিষয়ে সমাজ বা এলাকায় অবদানের জন্য গুণীজন সম্মাননা স্বারক প্রদান চালু করেছেন।

এই ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন সম্পর্কে জানতে চাইলে সংগঠনের সভাপতি আজহার সুমন জানান,আমরা সব সময় ই চেষ্টা করেছি সামাজিক ভাবে উন্নয়নমুখী কাজ করা জন্য, এবং আমরা তা চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করব।সবাই আমাদের সংগঠনের জন্য দোয়া ও সহযোগিতা করবেন।

আর যেই দেশে গুণীর কদর করা হয় না সেই দেশে গুণীর জন্মও হয় না।তাই আমরা প্রতিবছর গুনীজন সম্মাননা দেয়ার চেষ্টা করব।